বিতর্কিত ছাত্রলীগ নেতার ক্যাডারদের হামলায় সাংবাদিক হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ টেন্ডারবাজ খ্যাত বিএম কলেজের ছাত্রলীগ ক্যাডাররা এবার হামলা চালালো এক সাংবাদিকের উপর। সংবাদ প্রকাশের জের ধরে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে অবৈধ ছাত্র কর্মপরিষদের কথিত জিএস নাহিদ সেরনিয়াবাত’র সহযোগী ফয়সাল আহম্মেদ মুন্না সহ ১৫/২০ জন ছাত্রলীগ নামধারী ক্যাডার এই হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। গুরুতর অবস্থায় বরিশালের আঞ্চলিক দৈনিক কলমের কন্ঠ’র স্টাফ রিপোর্টার তন্ময় দাসকে চিকিৎসার জন্য শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
তন্ময় দাস জানান, বিভিন্ন সময় বিএম কলেজের অবৈধ ছাত্র কর্মপরিষদের কথিত জিএস নাহিদ সেরনিয়াবাত এবং তার অস্ত্রধারী ক্যাডার ফয়সাল আহম্মেদ মুন্না’র বিরুদ্ধে ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে সে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে যায় নাহিদ, মুন্না এবং তাদের টেন্ডারবাজ খ্যাত ছাত্রলীগ নামধারী ক্যাডাররা।
এর ধারাবাহিকতায় গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে তার ব্যবহৃত মোটর সাইকেল চালিয়ে তথ্য সংগ্রহের কাজে বিএম কলেজে প্রবেশ করেন তিনি। এসময় মুক্তমঞ্চের সামনে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ওৎ পেতে থাকা নাহিদ সেরনিয়াবাত এবং ফয়সাল আহম্মেদ মুন্না সহ ১৫/২০ জন নামধারী ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী তন্ময়’র মোটর সাইকেলের গতি রোধ করে। এক পর্যায়ে মোটর সাইকেল নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেসের অজুহাতে তন্ময়’র উপরে হামলা চালায় নাহিদ-মুন্নার সমর্থক ছাত্রলীগের ক্যাডাররা। এসময় তাকে এলোপাথারী পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। সেই সাথে তন্ময়ের সাথে থাকা পালসার মোটর সাইকেল, একটি ল্যাপটপ এবং একটি মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। পরবর্তীতে সাধারন শিক্ষার্থীরা তাকে উদ্ধার করে। পরে তাকে চিকিৎসার জন্য শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তন্ময় জানায়, নাহিদ সেরনিয়াবাত পাশে দাড়িয়ে থাকলেও তার নির্দেশে মুন্না সহ তার সহযোগিরা তাকে পিটিয়ে আহত করে।
বিএম কলেজ ছাত্রলীগের একাধিক সূত্র জানায়, কথিত জিএস নাহিদ সেরনিয়াবাত ক্যাম্পাসে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। ইতোপূর্বে কথিত ভিপি মঈন তুষারের সাথে থেকে নানা বিতর্কিত কর্মকান্ড করলেও বর্তমানে তিনি নিজেই বাহিনী তৈরী করেছেন। প্রশাসনের কিছু পদস্থ কর্মকর্তার সাথে ভালো সক্ষতা থাকায় নাহিদ তাদের দাপট দেখিয়ে টেন্ডারবাজী, চাঁদাবাজী, দখলবাজী সহ সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে বেড়াচ্ছে। নাহিদের দাপটে তার সহযোগী মুন্নাও একই পথে হাটছে। এমনকি কিছুদিন পূর্বে পরীক্ষার হলে নকল সরবরাহ করতে গেলে তাকে আটকে রাখে কর্তৃপক্ষ।
নাহিদ সেরনিয়াবাত জানায়, তন্ময় ক্যাম্পাসে বেপরোয়া গতিতে মোটর সাইকেল চালানোর কারনে প্রতিবাদ করে ছাত্রলীগ কর্মীরা। কিন্তু সে তা উপেক্ষা করে চালানোয় ছাত্রলীগের কর্মীরা না চিনে তাকে চড় দেয়। তখন সে গিয়ে তাকে ছাড়িয়ে দেয়।