বিজ্ঞপ্তির পলাতক আসামী ছাত্রলীগ নেতা প্রকাশ্যে

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ পলিটেকনিক কলেজের কথিত ছাত্রলীগ নেতা নিয়াজ মোর্শেদ সোহাগ ওরফে পাসপোর্ট সোহাগকে প্রকাশ্যে বীরদর্পে ঘুরে বেড়ালেও আদালত খুঁজে পাচ্ছে না। এই কারনে কিছুদিন পূর্বে তাকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়ে বিজ্ঞাপন প্রকাশ করেছে। ২০০৮ সালের একটি মামলার আসামী হিসেবে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে নগরীতে আরেক প্রভাশালী ছাত্রলীগ নেতার সাথে নানা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে প্রকাশ্যে জড়িয়ে থাকে। এমনকি পুলিশের সাথে প্রকাশ্যে তাকে দেখা গেছে। ছাত্রলীগ নেতা হওয়ায় প্রশাসনের নাকের ডগায় বীর দর্পে ঘুরে বেড়ালেও তাকে গ্রেপ্তার করছে না পুলিশ।
তার বিরুদ্ধে করা মামলা বিচারের জন্য গত ১ জুন মুখ্য বিচারবিভাগীয় হাকিম মোহাম্মদ আলী হোসাইন স্বাক্ষরিত একটি বিজ্ঞপ্তি স্থানীয় একটি পত্রিকায় প্রকাশ হয়। সেখানে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে আসামি স্বেচ্ছায় হাজির না হলে তার অভ্যন্তরে বিচার কার্য পরিচালনা করবে আদালত। প্রকাশিত আদালতের ওই বিজ্ঞপ্তির ১৫ নং কলামে সরকারী বরিশাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক ও নগরীর মনসুর কোয়াটার প্রথম ভবন আলী ম্যানশনের বাসিন্দা মৃত শাহ আলম এর ছেলে নিয়াজ মোর্শেদ সোহাগ ওরফে পাসর্পোট সোহাগ নামটিও উল্লেখ রয়েছে। যার কোতয়ালী মডেল থানায় থানার মামলা নং-৩৭। জি আর ৭৫৭/০৮ তারিখ ১৪/১১/০৮ ধারা ১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৪/৩২৬/৩০৭/৩৭৯ দন্ড বিধি।
কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে আদালতে আত্মসমর্পনের জন্য। আত্মসমর্পন না করলে আসামীকে গ্রেপ্তার করা হবে। পরোয়ানা রয়েছে কিনা তা খোঁজ নিয়ে দেখতে হবে।