বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদককে ফুলের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহিনের মৃত্যুর ১ বছরেরও বেশী সময় পর ওই কমিটির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক জিয়াউদ্দিন শিকদার জিয়া ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ায় কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সভাপতি সাবেক মেয়র অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ারকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়েছে মহানগর বিএনপি। গতকাল রোববার নগরীর সদর রোডের দলীয় কার্যালয়ের সামনে মহানগর বিএনপি’র সহ-সভাপতি আব্বাস উদ্দিন বাবলুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর বিএনপি’র সভাপতি অ্যাড. মজিবর রহমান সরোয়ার।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে সরোয়ার বলেন, আগে উন্নয়ন পরে গণতন্ত্র নয়। গণতন্ত্রের মধ্যদিয়েই দেশের উন্নয়ন করতে হবে। সরোয়ার বলেন, এ সরকারের কাছে জনগনের কদর নেই। কারণ তাদের জনগনের ভোটের প্রয়োজন হয়না। সরকার যাদের দিয়ে ভোট পায় সেই পুলিশ-প্রশাসনের বেতন-ভাতা দ্বিগুন করে, তাদের সন্তুষ্ট রেখেছে। আগামী দিনে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ার আহ্বান জানান সাবেক এমপি সরোয়ার।
বক্তৃতা করেন মহানগর বিএনপি’র সদ্য ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়া জিয়াউদ্দিন শিকদার জিয়া, কেন্দ্রীয় বিএনপি’র নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি আবুল হোসেন খান সহ অন্যান্যরা।
২০১২ সালে অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ারকে সভাপতি এবং অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহীনকে সাধারণ সম্পাদক করে মহানগর বিএনপি’র কমিটি গঠিত হয়। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক করে গঠিত কমিটি একটি প্রস্তাবিত পূর্ণাঙ্গ কমিটি করে অনুমোদনের জন্য কেন্দ্রে প্রেরণ করেন। প্রায় ১ বছর পর ২০১৩ সালের ৫ অক্টোবর দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বিএনপি চেয়ারপার্সনের নিদের্শে ১৭১ সদস্যের ওই কমিটি অনুমোদন দেন।
২০১৪ সালের ২২ নভেম্বর মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক কামরুল আহসান শহীনের অকাল মৃত্যুর পর ১ নম্বর যুগ্ম সম্পাদক দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সাধারণ সম্পাদকের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।
অবশেষে ১০ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপার্সনের নির্দেশে দপ্তর সম্পাদক রুহুল কবির রিজভী আহমেদ স্বাক্ষরিত চিঠিতে ১ নম্বর যুগ্ম সম্পাদক জিয়াউদ্দিন শিকদার জিয়াকে মহানগর বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়। এদিকে অভিযোগ উঠেছে এ অনুষ্ঠানে বিএনপর সিংহভাগ নেতারাই অনুপস্থিত ছিলেন। তাদের অভিযোগ ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার কোনো চিঠি কেন্দ্র থেকে আসেনি।
তবে এ অভিযোগ সম্পর্কে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জিয়াউদ্দিন সিকদার বলেন, কারোও প্রয়োজন হলে আমার কাছ থেকে এসে ফটোকপি নিতে পারেন।