বাবুগঞ্জে ট্রাক চলাচলের প্রতিবাদে গ্রামবাসীর বিক্ষোভ

বাবুগঞ্জ প্রতিবেদক ॥ বাবুগঞ্জে বালুবাহী ও মালবোঝাই ট্রাক চলাচলে রাস্তা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার প্রতিবাদে রাস্তায় গাছ পুঁতে সড়ক অবরোধ করেছে গ্রামবাসীরা। এসময় শোডাউন দিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর ঘেরাওসহ বিক্ষোভ সমাবেশ করে তারা। গতকাল বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়নের আ’লীগ নেতা ও বালু ব্যবসায়ী নুরু বেপারি মানিককাঠি গ্রামে বালুর খোলা স্থাপন করে প্রায় ২৫ টন ট্রাকের মাধ্যমে ওই বালু পরিবহনের কাজ করে আসছিলেন। চলতি বর্ষা মৌসুমে তার ওই বালুভর্তি ট্রাকসহ ভারী যানবাহন চলাচলের কারণে মানিককাঠি-রহমতপুর সড়কের বিভিন্ন স্থানে ফাঁটল ও খানা-খন্দের সৃষ্টি হয়। এতে মানিককাঠি ও দোয়ারিকা গ্রামের মানুষের চলাচলের ওই একমাত্র রাস্তাটি বর্তমানে ব্যবহারের প্রায় অনুপোযুক্ত হয়ে পড়ে। এ ব্যাপারে মৌখিকভাবে অসংখ্যবার অনুরোধ করেও কোন সুরাহা না হওয়ায় অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় ইউপি সদস্য জাহিদুল ইসলাম নয়নের নেতৃত্বে ওই দুই গ্রামের ৫ শতাধিক জনতা মানিককাঠিতে সড়ক অবরোধ করে। এসময় তারা রাস্তায় গাছ পুঁতে ও চেইন বেঁধে সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। এসময় অবরোধের নেতৃত্বদানকারী ইউপি সদস্য জাহিদুল ইসলাম নয়নকে পুলিশ গ্রেফতারের হুমকি দিলে শতাধিক মোটর সাইকেল, অটোরিক্সা ও মাহিন্দ্র টেম্পো নিয়ে শোডাউন করে উপজেলা পরিষদ চত্ত্বর ঘেরাও করে অবরোধকারীরা। এসময় তারা উপজেলা পরিষদের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এসময় ইউপি সদস্য জাহিদুল ইসলাম নয়নের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন আকন, যুবলীগ নেতা নাসির আকন, শাহিন মাহামুদ প্রমুখ। পরে আন্দোলনকারীদের একটি প্রতিনিধি দলের সাথে উপজেলা চেয়ারম্যান সরদার খালেদ হোসেন স্বপনের এক সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপজেলা চেয়ারম্যানের আশ্বাসে ঘেরাও কর্মসূচি প্রত্যাহার করে আন্দোলনকারীরা। তবে স্থায়ী সমাধান না হওয়া পর্যন্ত সড়ক অবরোধ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে বলে জানান ইউপি সদস্য জাহিদুল ইসলাম নয়ন। সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রহমতপুর-মানিককাঠি সড়কে ট্রাকসহ সব ধরনের ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল।