বাণিজ্য মেলা ॥ হাউজি জুয়া অশ্লীলতা রোধে আন্দোলনের হুশিয়ারী

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ কথিত আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আড়ালে বরিশালে ফের শুরু হচ্ছে নগ্ন নৃত্য, জুয়া ও মাদক ব্যবসা। এরইমধ্যে নগরীর বান্দ রোডস্থ বিআইডবি¬উটিএ’র মেরিন ওয়ার্কশপ মাঠে স্টলের পাশাপাশি প্যান্ডেল নির্মাণের কাজ চালানো হচ্ছে। সংশি¬ষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এবারও মেলাকে কেন্দ্র করে জুয়া, হাউজি, মাদক ব্যবসা ও অশ¬ীল নৃত্যর আয়োজন করতে যাচ্ছে একটি প্রভাবশালী মহল। যদিও একই সময় শুরু হচ্ছে এইচএসসি পরীক্ষা। এদিকে স্বাধীনতার মাসে এমন অশ¬ীলতা ও জুয়া ঠেকাতে আন্দোলনের হুঁশিয়ারী দিয়েছে বরিশাল নগরীর সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনগুলো।
বরিশালের ২৭টি সংগঠনের জোট সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি এ্যাড. এসএম ইকবাল জানান, বাণিজ্য মেলাকে কেন্দ্র করে যে অশ¬ীলতার (যাত্রা-জুয়া) পায়তারা চলছে তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। নগ্ন নৃত্য, মাদক ব্যবসা ও জুয়ার বিরুদ্ধে তারা সব সময় ঐক্যবদ্ধ। তারা আন্দোলনে নামতে প্রস্তুত রয়েছে। এর অনুমোদন না দেয়ার জন্য তিনি বরিশালে পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন। ৭১’র ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির মহানগর সাধারণ সম্পাদক শান্তি দাস জানান, যাত্রার নামে নগ্নতা ও জুয়ার আসরের বিরুদ্ধে তারা সব সময় আন্দোলন করে আসছেন। এবারও এর ব্যত্যয় ঘটবে না। তিনি প্রশাসনের প্রতি দৃষ্টি আর্কষণ করেছেন, যে এ অশ¬ীলতার অনুমোদন যেন না দেয়া হয়।
মেলার মাঠ সূত্রে জানা গেছে, প্রতি বছরের মত এবারও বরিশালে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আড়ালে অশ¬ীলতার পাঁয়তারা চালাচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের কতিপয় মুখ চেনা নেতারা। প্রতিবার বিভিন্ন ধরনের খেলা, হাউজি ও র‌্যাফেল ড্র এর নামে অনুমোদন এনে চালানো হয় জুয়ার আসর। এছাড়া ঐতিহ্যবাহী যাত্রা ও পুতুল নাচের আড়ালে চালানো হয় নগ্ন নৃত্য। এবছরও এ অশ¬ীল নৃত্য ও জুয়ার আসর করার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে কতিপয় ক্ষমতাসীন দলের নেতারা। ইতোমধ্যে তারা নগরীর বান্দ রোডস্থ বিআইডবি¬উটিএ’র মেরিন ওয়ার্কশপ মাঠে স্থাপন করেছে স্টল ও প্যান্ডেল। এমনকি মন্ত্রণালয় থেকেও অনুমোদন এনেছে বলে সূত্র দাবী করেছে। খুব শীঘ্রই এসব আসর নিয়ে যাত্রা শুরু করবে কথিত আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। নগরীর বিএম স্কুল রোডের বাসিন্দা কামাল হোসেন জানান, প্রতি বছর আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা আসে বরিশালে। কিন্তু তাতে কোন আন্তজার্তিক পণ্য শোভা পায় না। কিছু জুতোর দোকান, খেলনার দোকান ও গৃহস্থলির প্রতারনার দোকান ছাড়া আর কিছু থাকে না। আর চলে যাত্রার নামে মেয়েদের নগ্ন নৃত্য, হাউজি, র‌্যাফেল ড্র ও জুয়া। হারুন অর রশিদ নামে এক এসএসসি পরীক্ষার্থীর পিতা জানান, মেলার নামে নানা আকর্ষণীয় আয়োজন শুরু করা হয়, পরীক্ষার সময়। ফলে শিক্ষার্থীদের মনোযোগ ওই দিকে টেনে নিয়ে যায়। তিনি অশ¬ীল নৃত্য ও জুয়ার আসর বন্ধ করে সুস্থ্য ধারার বিনোদন চালুর জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর আহ্বান জানান।
মেলার আয়োজক বরিশাল চেম্বার অব কর্মাস সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু জানান, মেলা আয়োজনের লক্ষে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। মেলার জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন পেয়েছেন বলে তিনি দাবী করেন। তবে এবারের মেলায় কোন প্রকার অশ¬ীল নৃত্য ও জুয়ার আসর বসবে না। মেলা আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক ও চেম্বারের সহ সভাপতি জাপা নেতা জাহাঙ্গির হোসেন মানিক জানান, মার্চের প্রথম সপ্তাহে মেলার উদ্বোধন করা হবে। এবারও বিদেশী কোন দোকান থাকবে না। তবে যাত্রার নামে নৃত্য ও জুয়ার আসরের আয়োজন করায় তিনি আহ্বায়ক হয়েও একটু আড়ালে আড়ালে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বরিশালের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) আবুল কালাম আজাদ জানান, চেম্বার অব কর্মাসের আর্ন্তজাতিক বাণিজ্য মেলা করার জন্য জেলা প্রশাসনের অনুমোদন লাগে। কিন্তু এধরনের কোন অনুমোদন মেলা কর্তৃপক্ষ নেয়নি। এ মেলাকে কেন্দ্র করে যদি কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে তবে তারা যথাযথ আইনি পদক্ষেপ নিবেন বলে তিনি জানান। এ ব্যাপারে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের মুখপাত্র ও সহকারী কমিশনার আবু সাইদ জানান, যাত্রা জুয়ার অনুমোদন তারা দেন না। এটি মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন ও জেলা প্রশাসনের অনুমোদনের উপর ভিত্তি করে হয়। তিনি বলেন, বিএমপি পুলিশ খেলার নামে জুয়া ও যাত্রার নামে অশ¬ীলতার কখনো প্রশ্রয় দেবে না। এর বিরুদ্ধে পুলিশ প্রশাসন কঠোর অবস্থায় থাকবেন বলে তিনি জানান।