বাকেরগঞ্জে বিধবা নারীকে ধর্ষনের অভিযোগ

বাকেরগঞ্জ প্রতিবেদক ॥ বাকেরগঞ্জের গারুড়িয়ার মেউর গ্রামে বিধবা এক নারীকে ধর্ষনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত ১৭ এপ্রিল ধর্ষনের ঘটনাটি ঘটে। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় ৩ সন্তানের জননী ধর্ষিতা (৩৫) একই গ্রামের মৃত ইয়াকুব আলী খানের লম্পট পুত্র হেমায়েত খান-৩০ যৌন লালসার শিকার হন। ধর্ষিতা পুতুল জানায় হেমায়েতের বাড়ি তার বেয়াই বাড়ি হওয়ায় ঐ দিন সে ঐ বাড়িতে বেড়াতে যায়। প্রকৃতির ডাকে রাত সাড়ে ১২টার সময় বাইরে বের হলে হেমায়েত তার মুখ চেপে ধরে বসত ঘরের অদুরে দুটি খড়ের কুরের আড়ালে নিয়ে ধর্ষন করে। ধর্ষিতার পুত্রবধূ লাইজু জানান, আমার শাশুড়ী প্রকৃতির ডাকে বাইরে যায়। এবং ১ ঘন্টা সময় পার হলেও সে ঘরে ফিরে না আসায় আমি তাকে খুজতে বের হয়ে ডাক দিলে হেমায়েত খান আমার সামনে দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। অনেক খোজাখুজির পরে খড়ের কুড়ের পাশে তাকে অচেতন অবস্থায় পাই। ঘরে নিয়ে আসার কিছু সময় পরে হেমায়েত এসে আমি সহ আমার শাশুড়িকে হুমকি দিয়ে যায় এ ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি করলে তোদের দেখে নেয়া হবে। হেমায়েতের ভয়ে ঐ রাতে কারও কাছে কিছু বলিনি। সকালে আমার বাপের বাড়ি থেকে শাশুড়ি পালিয়ে গিয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানান। স্থানীয় জনতা বাকেরগঞ্জ থানায় খবর দিলে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আজিজুর রহমান ও এসআই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে খোজ খবর নেন। হেমায়েতের বাসায় গিয়ে হেমায়েতকে পাওয়া যায়নি। হেমায়েতের স্ত্রী পারভীন জানান, তার স্বামীর চরিত্র ভাল না ও ধর্ষনের ব্যপারে সে কিছু জানে না। এ ব্যপারে এলাকাবাসী দোষীদের গ্রেপ্তার করে দৃস্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।