বর্ণাঢ্য আয়োজনে নগরীতে যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে নগরীতে পালিত হয়েছে আওয়ামী যুবলীগের ৪৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী। শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিট থেকে গতকাল দিনভর বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, আলোচনা সভা, কেক কাটা এবং পুষ্পস্তাবক অর্পন সহ নানান কর্মসূচি পালন করা হয়। জেলা ও মহানগর যুবলীগের যৌথ উদ্যোগে কর্মসূচি পালন হলেও শুরু থেকেই এর নেতৃত্বে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। তার অংশ গ্রহনে যুবলীগের প্রত্যেকটি কর্মসূচিই প্রানবন্ত হয়ে ওঠে।
বিশেষ করে যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদ্যাপন কর্মসূচির মধ্যে উল্লেখ্য প্রধান আর্কশন ছিলো বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা। যার অগ্রভাগে থেকে নেতৃত্ব দেয়ার পাশাপাশি হাতে পতাকা নাড়িয়ে শোভাযাত্রায় অংশগ্রহনকরীদের উৎসহ যোগান সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। আনন্দ শোভাযাত্রায় বিশেষ আকর্ষন হিসেবে ছিলো হাতি এবং ঘোরা। র‌্যালীর একে বারেই সামনে ছিলো হলুদ সাড়ি পরিহিত নারীদের অংশগ্রহনে বর্ণাঢ্য এবং চোখ জোড়ানো ডিসপ্লে। সেই সাথে স্থানীয় ব্যান্ড শিল্পিদের অংশগ্রহনে বাদ্য যন্ত্রের সুর এবং র‌্যালী জুড়ে ভুলুজেলা বাসির শব্দ।
এর পূর্বে বেলা সাড়ে ১১টায় নগরীর সদর রোডে শহীদ সোহেল চত্ত্বরে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর আনন্দ র‌্যালী’র উদ্বোধন করা হয়। বেলুন-ফেস্টুন উড়িয়ে অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষনা করেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. তালুকদার মো. ইউনুস-এমপি। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাড. গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল, সাধারন সম্পাদক এ্যাড. একেএম জাহাঙ্গীর, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, সহ-সভাপতি আমিনুল ইসলাম তোতা, আলহাজ্ব সাইদুর রহমান রিন্টু, যুবলীগ মহানগর শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক মেজবাহ উদ্দিন জুয়েল, সাহিন সিকদার, জেলা যুবলীগের সভাপতি মো. জাকির হোসেন, সাধারন সম্পাদক ফজলুল করিম শাহিন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ আনিসুর রহমান, মহিউদ্দিন আহম্মেদ, যুবলীগ সদস্য ও “ল” কলেজের সাবেক ভিপি এ্যাড. রফিকুল ইসলাম খোকন, সাবেক জিএস এ্যাড. রফিকুল ইসলাম ঝন্টু, তারেক বিন ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিজানুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন সুমন সেরনিয়াবাত প্রমুখ।
এছাড়া র‌্যালী’র পূর্বে যুবলীগের মহানগর শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক মেজবাহ উদ্দিন জুয়েল এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা। এতে প্রধান অতিথি’র বক্তৃতায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. তালুকদার মো. ইউনুস-এমপি বলেছেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একটি বড় শক্তিই হচ্ছে যুবলীগ। তৎকালিন সময়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আদর্শে অনুপ্রানিত হয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ গঠন হয়েছিলো। যার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ ফজলুল হক মনি। আজ সেই যুবলীগ বাংলাদেশের একটি ঐতিহ্যবাহী সংগঠন।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু’র তনায় জননেত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলছে। তার মধ্যেও আওয়ামী লীগকে নিয়ে ষড়যন্ত্র থেমে নেই। দেশের উন্নয়ন বাঁধাগ্রস্থ করতে যাচ্ছে বিএনপি-জামায়াত জোট। কিন্তু আমরা তাদের সেই ষড়যন্ত্র আবার প্রতিহত করে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জননেত্রী’র হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। এজন্য যুব শক্তির বিকল্প নেই। সামনে আমাদের দুটি নির্বাচন। একটি সিটি কর্পোরেশন এবং অপরটি জাতীয় সংসদ নির্বাচন। বরিশালের মাটিতে পুনরায় আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনতে হবে। জননেত্রা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ-এমপি’র নেতৃত্বে আসন্ন সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয় নিশ্চিত করতে নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।
এর আগে দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার রাত ১২টা ১ মিনিটে সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র নেতৃত্বে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচির সূচনা হয়। তাছাড়া গতকাল শনিবার সকালে কেন্দ্রীয় যুবলীগের পক্ষে সদর রোডে দলীয় কার্যালয়ের পাশে রক্ষিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ ফজলুল হক মনি’র প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পন করেন যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। এর পরে জেলা ও মহানগর যুবলীগের পক্ষ থেকে পৃথক ভাবে পুষ্পার্ঘ অর্পন করা হয়।
এদিকে সমাবেশে পরবর্তী সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ’র নেতৃত্বে বিশাল বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। যার সামনে থেকে হাতে পাতা নাড়িয়ে অংশগ্রহনকারীদের উৎসহ দেন সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। সোহেল চত্ত্বর থেকে বের হওয়া আনন্দ শোভাযাত্রাটি সদর রোড, গীর্জা মহল্লা, চক বাজার এবং ফজলুল হক এভিনিউ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় সোহেল চত্ত্বরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হয়। র‌্যালীতে শুধুমাত্র বরিশাল মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ড থেকেই নয়, বরিশাল সদর উপজেলা সহ ১০টি উপজেলা থেকে আসা যুবলীগের নেতা-কর্মীরাও অংশ গ্রহন করেন। বিশেষ করে মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের এক রং এর টি-শার্ট এবং ক্যাপ র‌্যালিতে একটু ভিন্নতা এনে দেয়।
এর আগে আনন্দ শোভাযাত্রায় অংশ নিতে নগরীর ৩০টি ওয়ার্ড থেকে ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি এবং সাধারন সম্পাদক সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দের নেতৃত্বে একে একে মিছিল সহকারে নেতা-কর্মীরা সদর রোডে দলীয় কার্যালয়ে জড় হয়। বাস, লঞ্চ এবং স্পীড বোর্ড রিজার্ভ করে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে নেতা-কর্মীরা প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচিতে যোগ দিতে আসেন। এর ফলে বেলা ১১টার পর থেকেই সদর রোড এলাকায় জন¯্রত নেমে আসতে শুরু করে। যানসাধারনের চলাচলের সুবিধার্তে সদর রোডে ট্রাফিক বিভাগ কর্তৃক দেয়া ডিভাইডারও কিছু সময়ের জন্য সরিয়ে দেয়া হয়। দুপুর ১টা পর্যন্ত সদর রোড এলাকা যুবলীগ নেতা-কর্মীদের পদচারনায় মুখোর ছিলো।
এদিকে বিকালে সদর রোডে দলীয় কার্যালয়ের সামনে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা করেছে মহিলা যুবলীগ। জেলা ও মহানগর যুবলীগ আয়োজিত সমাবেশে বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।