বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাগত শিক্ষার্থীর উদ্দেশ্যে তরুন প্রজন্মের কাছে মানুষ অনেক কিছু আশা করে – ঢাবি উপাচার্য

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ তরুন প্রজন্মের কাছে মানুষ অনেক কিছু আশা করে। সনদ পাওয়া কিংবা জিপিএ-৫ পাওয়াই জীবনের মূল কথা নয়। মূলত জীবনের লক্ষ্য হওয়া উচিৎ নিজেকে একজন ভাল মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য অধ্যাপক আ.আ.ম.স আরেফিন সিদ্দিকি। গতকাল বৃহস্পতিবার বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৫-২০১৬ শিক্ষা বর্র্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের অরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি।
কর্ণকাঠীর স্থায়ী ক্যাম্পাসে অরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে ঢাবি উপাচার্য ববি’র শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ হচ্ছে একজন শিক্ষার্থীকে সু-শিক্ষিত করে পরিপূর্ণ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা। সু-শিক্ষিত মানুষ হলেই পরিপূর্ণ মানুষ এবং দেশ প্রেমিক হওয়া সম্ভব। বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়ন করার মধ্য দিয়েই সত্যিকারের একজন মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠা সম্ভব।
তিনি বলেন, সমাজে অসৎ কাজের সাথে অনেক শিক্ষিত মানুষ জড়িত। আসলে এটা সত্যিকারের শিক্ষিত মানুষের কাজ নয়।
ববি উপাচার্য অধ্যাপক ড. এসএম ইমামুল হক’র সভাপতিত্বে অরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি আ.আ.ম.স আরেফিন সিদ্দিকি শিক্ষার্থীর উদ্দেশ্যে বলেন, জ্ঞানার্জনের কোন নির্দিষ্ট সীমারেখা নেই। শিক্ষার্থীদের অনেক গুণাবলী অর্জন করতে হবে।
ঢাবি উপাচার্য তাদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, শিক্ষার সাথে মিথ্যা কখনই এক সাথে যায় না। যিনি প্রকৃত শিক্ষিত তিনি কখনই মিথ্যা বলতে পারেন না। একজন প্রকৃত মানুষ কখনই মিথ্যার আশ্রয় নিতে পারে না।
নবাগত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে উপাচার্য বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদেরকে একটি স্বাধীন দেশ উপহার দিয়েছেন বলেই আজ আমরা এখানে আসতে পেরেছি।
তিনি বলেন ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে তরুনরাই অগ্রনী ভূমিকা পালন করেছে, তোমরা তরুনরাই আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মণে এগিয়ে আসবে। এজন্য তোমাদেরকে অতীত থেকে শিক্ষা নিতে হবে। জানতে হবে ও শিক্ষা নিতে হবে কিভাবে আমরা মুক্তিযুদ্ধে বহিঃবিশ্ব থেকে সাহায্য সহযোগিতা পেয়েছি । এগুলো ইতিহাসের অংশ বলেন ঢাবি উপাচার্য।
অনুষ্ঠানের সভাপতি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. এসএম ইমামুল হক বলেন, সোনার হরিণের পিছনে ধাবিত না হয়ে সোনার মানুষ হওয়ার লক্ষ্যে ধাবিত হও। সত্যিকারের শিক্ষায় শিক্ষিত না হলে এ-প্লাস জীবনের কোন পাথেয় হতে পারেনা। একটি বিষয় পড়াশোনা করে একজন শিক্ষার্থী কতটুকু অনুধাবন করতে পারলো, কতটুকু অর্জন করতে পাড়লো, সেটিই জীবনের পাথেয় হয়ে থাকবে।
ববি উপাচার্য “র‌্যাগিং” এর বিরুদ্ধে কঠিন হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, কোন শিক্ষার্থী র‌্যাগিংয়ে জড়িত থাকার প্রমাণ পেলে তাকে বহিষ্কার করা হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক এ কে এম মাহবুব হাসান।
অনুষ্ঠানে বরিশালের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, সরকারী বিভিন্ন দপ্তরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং ২০১৫-২০১৬ শিক্ষা বর্ষে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
অরিয়েন্টেশন শেষে নবাগত শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে বিআরটিসির ২টি দ্বিতল বাসেরও উদ্বোধন করেন ঢাবি উপাচার্য। পরে ববি’র মুক্তমঞ্চে শিক্ষার্থীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।