বরিশাল নৌ-বন্দরে আনসার সদস্যদের সাহসিকতায় বেঁচে গেল এক লঞ্চযাত্রীর প্রাণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ লঞ্চ থেকে নদীতে পড়ে যাওয়া যাত্রীর প্রান বাচিয়েছে আনসার সদস্য। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বরিশাল নৌ-বন্দরে এই ঘটনা ঘটেছে। নদীতে পড়ে প্রানে বেঁচে যাওয়া গেলেও আহত হয় যাত্রী তানিম। তাকে উদ্ধারের পর বিআডব্লিউটিএ’র অস্থায়ী চিকিৎসা ক্যাম্পে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। তানিম কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ গ্রামের মো. মহিউদ্দিনের ছেলে।
আনসার পিসি মো. সুমন জানান, ঈদ উপলক্ষে যাত্রীদের নিরাপত্তায় ৩ জন পিসিসহ ৩০ জন আনসার সদস্য নদী বন্দরে দায়িত্ব পালন করেন। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এমভি ফারহান-৭ লঞ্চে উঠতে ছিল যাত্রী তানিম। এই সময় ফারহান লঞ্চকে ধাক্কা দেয় এমভি টিপু লঞ্চ। এতে নিজের ভারসাম্য হারিয়ে তানিম নদীতে পড়ে। বিষয়টি নজরে আসার সাথে সাথে তিনি (পিসি সুমন) নদীতে ঝাপিয়ে পড়েন। কর্তব্যরত আনসার সদস্য আব্দুল কুদ্দুস ও মো. ইমরান দেখতে পেয়ে রশি নিয়ে নদীতে ছুড়ে দেয়। রশি ধরে যাত্রীকে নিয়ে পন্টুনে উঠেন পিসি সুমন। নদীতে পড়ে গিয়ে শরীরে বিভিন্নস্থানে আঘাত পায় যাত্রী তানিম। তাকে উদ্ধারের পর দ্রুত তাকে বিআডব্লিউটিএ’র অস্থায়ী চিকিৎসা ক্যাম্পে নেয়া হয়। সেখানের কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। পরে ওই যাত্রীকে ঢাকাগামী সুরভী-৮ লঞ্চে উঠিয়ে দেয়া হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীসহ নৌ-পুলিশ এবং বিআইডব্লিউটিএর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জানিয়েছেন, পিসি সুমনের সাহসী ও দায়িত্বপূর্ন ভুমিকায় যাত্রী প্রানে রক্ষা পেয়েছেন। কারন এমভি টিপু-৭ ও সুরভী-৮ লঞ্চের মধ্যে পড়েছিল ওই যাত্রী। দুই লঞ্চের চাপায় কিংবা তলে চলে গেলে যাত্রীকে রক্ষা করা যেত না। পিসি সুমনের এ ভুমিকা সকলের কাছে প্রশংসিত হয়েছে।