বরিশাল জাদুঘর পর্যায়ক্রমে সমৃদ্ধ হবে : আসাদুজ্জামান নূর

১৩ বছর পর বরিশালে উদ্বোধন করা হয়েছে বরিশাল বিভাগীয় জাদুঘর। সংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আমাদুজ্জামান নূর এমপি সোমবার সকাল সাড়ে দশটায় ফলক উম্মোচনের মধ্যদিয়ে বরিশাল পুরানো কালেক্টরেট ভবনের এই জাদুঘর উদ্বোধন করেন।
উদ্বোধনী বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশীয় সাংস্কৃতিক ও ঐতিহ্য অটুট রাখার জন্য বরিশালে বিভাগীয় জাদুঘরের দ্বার উন্মোচিত হলো। সরকারের কর্মসূচি অনুযায়ী তাদের লক্ষ্য হলো এই বিভাগের প্রতœতত্ত্ব সংগ্রহ করে ইতিহাস মানুষর কাছে তুলে ধরা।
তিনি আশা করেন এই জাদুঘর পর্যায়ক্রমে সমৃদ্ধ হবে। এজন্য নাগরিকদের প্রতি আহবান করেন তাদের সংগ্রহে থাকা প্রতœতত্ত্ব জাদুঘরের কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করে জাদুঘরকে সমৃদ্ধশালী করতে।
তিনি আরও বলেন, এই সরকার বাংলাদেশের প্রতœতত্ত্ব সংরক্ষনে অনেক পদক্ষেপ গ্রহন করেছে যার ফলশ্রুতিতে বরিশালের এ জাদুঘর। এই জাদুঘরে বরিশাল বিভাগের সকল প্রাচীন সামগ্রী, প্রতœতত্ত্ব ও দুর্লভ বস্তু থাকবে। যার জন্য তিনি বরিশালের সকল স্তরের মানুষের সহায়তা চেয়েছে।
তিনি বলেন এ জাদুঘরের ফল্বে স্কুল, কলেজের ছাত্র ছাত্রিরা অনেক কিছু শিখতে পারবে। তিনি বলেন, আগামী প্রজম্মকে জাদুঘর মুখী হতে হবে। এখান থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে। একটি দেশে সন্ত্রাসবাদ দূর করতে সংস্কৃতির কোনো বিকল্প নেই। কিন্তু এ বিষয়ে উন্নতির জন্য আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা ভাল নয়। এবারের বাজেটে বেড়েছে ৬৫ কোটি টাকা। কিন্তু ১৬ কোটি মানুষের বাংলাদেশে এ ক্ষেত্রে বাজেট খুবই কম।
মন্ত্রী বলেন, যে কবিতা লিখতে পারে, গান গাইতে পারে আর ছবি আকতে পড়ে সে কখনই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের সঙ্গে লিপ্ত থাকে না।

প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক শিরিন আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল আলম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বরিশাল সদর আসনের সাংসদ জেবুন্নেছা আফরোজ এমপি, বিভাগীয় কমিশনার মো. গাউস, বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার শৈবাল কান্তি চৌধুরী, বরিশাল জেলা প্রশাসক শহিদুল আলম। জাদুঘর উদ্বোধনের পরে মন্ত্রী বরিশাল বিএম কলেজ রোডস্থ পাবলিক লাইব্রেরী ও বরিশাল শিল্পকলা একাডেমী পরিদর্শন করেন। এরপরে মন্ত্রী স্থানীয় সাংস্কৃতিক ব্যাক্তিদের সাথে সার্কিট হাউজে মতবিনময় সভা করেন।