বরিশালে স্থাপিত হচ্ছে বিমান বাহিনীর অত্যাধুনিক রাডার স্টেশন

সিদ্দিকুর রহমান ॥ জলসীমায় অর্থনৈতিক জোন নজরদারি করা এবং দেশের দক্ষিণাঞ্চলের উপর দিয়ে বিভিন্ন দেশের বাণিজ্যিক বিমানের চলাচল নিয়ন্ত্রণে বরিশালে স্থাপিত হবে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর অত্যাধুনিক রাডার স্টেশন। দক্ষিণাঞ্চলের সামরিক ও আকাশ এবং বিস্তৃর্ণ সমুদ্র এলাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার লক্ষ্যেই এই অত্যাধুনিক রাডার স্টেশন স্থাপন করা হবে। এছাড়াও স্থাপিত এই রাডারের মাধ্যমে সহজে শত্রু পক্ষের বিমানও অতি সহজে চিহ্নিত করা যাবে। দেশের অর্থনৈতিক খাতকে আরও সমৃদ্ধ করতে এই রাডার স্থাপন করা হচ্ছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়।
সূত্রে আরও জানা গেছে, বরিশাল জেলায় স্থাপিত অত্যাধুনিক এই রাডার স্টেশন স্থাপনের কাজ আগামী সেপ্টেম্বর মাসেই পুরোপুরি শুরু হবে। বরিশাল জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার পাংশায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর নির্দেশনায় ইতালির একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এই রাডার স্টেশনটি স্থাপনের কাজ করবেন।
এছাড়াও বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর নিয়ন্ত্রণে এই অত্যাধুনিক রাডার স্টেশন স্থাপনের জন্য ইতিমধ্যে ৪০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের এলএ শাখা সূত্রে জানা গেছে, বিমান বাহিনীর অত্যাধুনিক রাডার স্টেশনের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমির কেস নম্বর ০৪/২০০৭-২০০৮।
জানা গেছে, বাংলাদেশের সমুদ্র বিজয়ের পর এই সমুদ্র এলাকা নিজেদের আওতায় নিয়ে আসতে এবং প্রকৃত সুফল পেতে বিমান বাহিনী এই অত্যাধুনিক রাডার স্টেশন স্থাপন করছেন। যার ফলে এই রাডার স্টেশনের আওতায় বা এর উপর দিয়ে চলাচলকৃত বিভিন্ন দেশের বাণিজ্যিক বিমানকে ভ্যাট দিতে হবে। এতে করে এই রাডার স্টেশনের মাধ্যমে প্রতিমাসে প্রায় ৩০ হাজার ডলার আয় হতে পারে।
আর এই আয়ের অর্থটা দেশের অর্থনৈতিক খাতে বেশ ভূমিকা রাখবে বলে জানা যায়। বরিশালে বিমান বাহিনীর রাডার স্টেশন স্থাপনের বিষয়ে জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান জানান, দেশের সমুদ্র বিজয় এবং সামুদ্রিক সম্পদ রক্ষায় বিমান বাহিনীর ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই বিমান বাহিনী দেশের দক্ষিণাঞ্চলের অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা রক্ষার স্বার্থে জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার পাংশায় এই রাডার স্টেশন স্থাপন করবেন।
এছাড়াও এই বিষয়ে বিমান বাহিনীর কর্মকর্তাদের সাথে বেশ কয়েকবার মতবিনিময় সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় তিনি আরও জানান, অত্যাধুনিক এই রাডার স্টেশন স্থাপনের জন্য ইতিমধ্যে ৪০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। আর পুরোপুরি নির্মাণের কাজ আগামী মাসেই শুরু হবে। যার ফলে রাডার স্টেশন স্থাপনের কাজ তদারকির জন্য বিমান বাহিনীর কর্মকর্তাবৃন্দ বরিশালে দুই বছর অবস্থান করবেন বলে জানান তিনি।