বরিশালে মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত ॥ জলবদ্ধতা নিরসনে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দিন-রাত কাজ করার নির্দেশ সিটি মেয়রের

পরিবর্তন ডেক্স ॥ চলতি মৌসুমের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতে গতকাল নগরীর বিভিন্ন স্থানে জলবদ্ধতা দেখা দিলে বিসিসি মেয়র আহসান হাবিব কামাল পরিদর্শনে যান। তিনি সদর রোড, বটতলা, চৌমাথা, বগুড়া রোড সহ আশপাশের এলাকা পরিদর্শনকালে কোথাও ড্রেনেজ ব্যবস্থা নাজুক রয়েছে কিনা তা পরিদর্শন করেন। এসময় সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল জলবদ্ধতা নিরসনে সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের দিন-রাত কসাজ করার নির্দেম দেন। নগরীর সদর রোডে ড্রেনেজ ব্যবস্থা পরিদর্শনকালে মেয়র উপস্থিত নগরবাসীকে জলবদ্ধতা নিরসনে নানান পরামর্শ দেন। মেয়র স্থানীয় দোকানদারদের ময়লা- আবর্জনা যত্রতত্র বা ড্রেনে না ফেলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নিকটস্থ ডাস্টবিনে ফেলা এবং পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। পরিদর্শনকালে উপস্থিত ছিলেন বিসিসি’র পানি ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর আক্তারুজ্জামান হিরু, বিসিসি’র প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: মতিউর রহমান, পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা দিপক লাল মৃধা, সহকারী পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা ইউসুফ আলী, মাহবুব আলম।
সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল জানান তিনি আবহাওয়া অফিসের সাথে যোগাযোগ করে জানতে পেরেছেন এ মৌসুমের সর্বোচ্চ ২২০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। তিনি সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে জলবদ্ধতা ও ড্রেন পয়ঃনিস্কাশনের জন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কঠোর নির্দেশ দেন। মেয়র বলেন একাধারে রাতভর মুষলধারে বৃষ্টিপাত হওয়ায় কিছু নিচু এলাকায় জলবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। জলবদ্ধতা নিরসনে সকাল থেকে বিসিসি’র কর্মীরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। দুপুরে মেয়র আহসান হাবিব কামাল নগর ভবনে বজ্য ব্যবস্থাপনা, পয়ঃনিস্কাশন সহ বিদ্যুত ও পানি বিভাগের কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে জলবদ্ধতা নিরসনে সকল বিভাগের সমন্বয়ের মাধ্যমে দিন-রাত কাজ করে নগরবাসীর দুর্ভোগ লাগবের নির্দেশ দেন। মেয়র জানান, কিছু ওয়ার্ডের নিচু এলাকায় প্রবল বর্ষণে কিছু সময় পানি জমে থাকার খবর পেয়ে সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর ও পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের নিজ নিজ ওয়ার্ডের ড্রেনসমূহের পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা দায়িত্বশীলতার সাথে সম্পন্ন করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
মেয়র বর্ষণজনিত জলাবদ্ধতা নিরসনে নগরবাসীকে গৃহস্থালির আবর্জনা যত্রতত্র বা ড্রেনে না ফেলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নিকটস্থ ডাস্টবিনে ফেলা এবং পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।