বরিশালে চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের রেস্তোরা ‘হান্ডি কড়াই’

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ এবার বরিশালেই চালু হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের রেস্তোরা “হান্ডি কড়াই”। এই প্রথম নগরীর প্রাণকেন্দ্র হোটেল এরিনার টপফ্লোর ও ৯ম তলার ছাদে যাত্রা শুরু হচ্ছে রুফটপ রেস্টুরেন্ট হান্ডী কড়াই। অসাধারণ পরিবেশ, বিশ্বমানের আসবাবপত্র, মনমুগ্ধকর ব্যতিক্রমী চোখ ধাঁধানো সাজসজ্জা, মানসম্মত সেবা ও সুস্বাদু খাবারের সমন্বয়ে “সময়কে স্বরণীয়” করে রাখতে কিংবা অবসরকালীন সময়কে বিনোদন উপভোগ্য স্থ’ান হিসেবে রেস্টুরেন্ট হান্ডি কড়াই উদ্বোধন হতে চলেছে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর শুক্রবার। হোটেল এরিনার স্বত্বাধিকারী শফিকুল আলম গুলজার এর আরও একটি ব্যাতিক্রমি ও আকর্ষনীয় প্রতিষ্ঠান হিসেবে শুরু হতে চলা এই রেস্টুরেন্টের সকল কাজ ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। উদ্বোধনের আগেই এই রেস্টুরেন্ট নজর কেড়েছে নগরীর বাসিন্দাদের। এখানে সুস্বাদু খাবার উপভোগের সাথে সাথে উপর থেকে কীর্তনখোলা নদী ও দপদপিয়া সেতু দেখা যাবে। এছাড়াও প্রথম বারের মতো হান্ডি কড়াইতে থাকবে লাইভ কিচেন। যে কোন অতিথি স্বচ্ছ গ্লাসের বাইরে থেকে রান্নার সমস্ত উপকরণ দেখতে পাবেন। বরিশাল ছাড়াও রাজধানীতেও এরকম আয়োজন দুর্লভ।
হান্ডি কড়াই রেস্টুরেন্ট কর্তৃপক্ষ জানান, নগরীর এটাই প্রথম রেষ্টুরেন্ট যেখানে রুফটপ রেস্টুরেন্টের সেবা পাওয়া যাবে। চারিদিকে উন্মুক্ত পরিবেশে খোলা আকাশের নিচে নগরবাসীর সেবা দিতে তৈরি করা হয়েছে এক চমৎকার পরিবেশ। এখানে এক সঙ্গে ১৬০ জনের বসার ব্যবস্থা করেছেন তারা। রেষ্টেুরেন্টে ব্যবহৃত সকল আসবাবপত্র আনা হয়েছে দুবাই থেকে। রেস্টুরেন্টের ব্যাতিক্রমি সাজ সজ্জার প্রতি বিশেষ দৃষ্টি দিয়েছেন জানিয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, মেঝে থেকে শুরু করে আলোকস্বজ্জায় ব্যাবহার করা হয়েছে উন্নতমানের সব উপকরণ। রেস্টরেন্টের প্রতিটি কোন সাজানো হয়েছে দেশী বিদেশী বিভিন্ন কৃত্রিম গাছ দিয়ে। মাটির প্রায় হাজার ফুট উপরে বসে খোলা আকাশের নিচে প্রকৃতির স্পর্শ পেতে রেস্টুরেন্টের কিছু অংশে স্বচ্ছ কাচের মেঝে নিখুত ভাবে সাজানো হয়েছে সবুজ ঘাসের আচ্ছাদন দিয়ে। বৃষ্টির জন্য রাখা হয়েছে মানানসই ছাতার ব্যবস্থা। রাতের বেলা রেষ্টেুরেন্টে এক মায়াবী আলোয় সপ্নীল পরিবেশ সৃষ্টি হবে। অনেক দূর থেকেও রাতের বেলা হান্ডি কড়াই রেষ্টুরেন্টের আলোকসজ্জা দেখা যাবে। সকল শ্রেনীর রুচিশীল মানুষের জন্য সাধ্যের মধ্যেই এই রেস্টুরেন্টে থাকবে ভারতীয়, চাইনিজ, থাই ও দেশী বিভিন্ন ধরনের সুস্বাদু খাবারের ব্যবস্থা। বিভিন্ন অনুষ্ঠান উৎযাপনের জন্য এখানে রয়েছে যথেষ্ট পরিসর। ৩৬ জন ওয়েটার ও প্রশিক্ষিত ১০ জন দেশী বিদেশি বাবুর্চি রয়েছে রান্নার জন্য। রেস্টুরেন্টে আগমনকারীদের সুবিধার্থে স্থাপন করা হয়েছে আলাদা একটি লিফট। এখানে রয়েছে ফ্যামিলি ও ক্যান্ডেল লাইট ডিনারের ব্যাবস্থা। এমন পরিবেশ ও খাবারের জন্য নগরবাসীর পকেট থেকে অন্যান্য রেষ্টুরেন্টের চেয়ে বেশি খরচ হবে না বলে আশ্বস্ত করেছেন কর্তৃপক্ষ। ৩০ সেপ্টেম্বর উদ্বোধনের পর এর পরিবেশ ও সেবা অবশ্যই নগরবাসীর কাছে একটি নতুন ও মনে রাখার মত অভিজ্ঞতা দেবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তারা। হান্ডিকড়াই কর্তৃপক্ষ জানান, খাবারের সাথে সাথে বিনোদনের ব্যবস্থা নিয়েও ভাবছেন তারা।
স্বত্বাধিকারী শফিকুল আলম গুলজার জানান, রেস্টুরেন্ট হান্ডি কড়াইতে আমরা চেষ্টা করেছি উন্নত দেশগুলোর মত শান্ত পরিবেশে অবসর ও বিশেষ মুহুর্ত কাটানোর সুযোগ করে দেয়ার। নগরবাসীর জন্য সাধ্যের মধ্যেই কোলাহল মুক্ত একটি অপূর্ব পরিবেশ তৈরি করার প্রত্যয়েই তিনি শুরু করেছেন নগরীর প্রথম এই রুফটপ রেস্টুরেন্ট হান্ডি কড়াই।