ববি’র ছাত্রী সাওদা হত্যায় দায়ে প্রেমিক রাসেলের মৃত্যুদন্ডাদেশ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী সাওদা হত্যা দায়ে ঘাতক প্রেমিক রাসেলকে মৃত্যু দন্ডাদেশ প্রদান করেছে আদালত।

আজ সোমবার বরিশালের জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আনোয়ারুল হক এ রায় ঘোষনা করেন।

২০১৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর সকাল ৯ টায় নগরীর ব্রাউন্ড কম্পাউন্ড রোডে বসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ববি’র হিসাববিজ্ঞান বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্রী সাওদাকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেন প্রেমিক রাসেল।

ওই দিন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য  ঢাকা নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রী সাওদা।

এ ঘটনায় নিহত সাওদার মা বাদী হয়ে কোতয়ালী মডেল থানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাসেলকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

পালিয়ে যাওয়া রাসেলকে ঘটনার এক সপ্তাহ পর চট্টগ্রাম নগরী থেকে গ্রেফতার করা হয়।

এর প্রেক্ষিতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কোতয়ালী মডেল মডেল থানার পুলিশ ২০১৪সালের ৩০এপ্রিল ঘাতক রাসেলকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

আদালত ২৭জন স্বাক্ষীর মধ্যে ১৯ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে এ মামলার মৃত্যু দন্ডাদেশ ও ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ডের রায় প্রদান করেন।

তিনি জানান, আগামী ৭ দিনের মধ্যে আদালতে আসামীপক্ষকে আপীল করার নির্দেশ দিয়েছেণ।

আসামীপক্ষের আইনজীবী জানান, এ রায় মনোভূত না হওয়ায় তারা উচ্চ আদালতে আপীল করবেন।

উল্লেখ্য  ২০১৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর সকালে ক্যাম্পাসের যাওয়ার পথে নগরীর ব্রাউন কম্পাউন্ড এলাকায় সাওদাকে উপর্যুপুরি কুপিয়ে জখম করে রাসেল। তাৎক্ষনিক তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেণ। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে সাওদা ও একই উপজেলার হারুন মাতব্বরের ছেলে রাসেল।