বছরে প্রথম দিনে শিক্ষার্থীদের মাঝে বই তুলে দিয়ে গ্লোবাল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল’র যাত্রা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বছরের প্রথম দিনেই বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের হাতে পাঠ্যবই তুলে দিলেন গ্লোবাল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল কর্তৃপক্ষ। বর্নাঢ্য আয়োজন এবং উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে গতকাল সোমবার নগরীর উত্তর আলেকান্দার রোজ বে ভবনে অবস্থিত এই বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে পাঠ্যপুস্তক বিতরন উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের বোর্ড অব ট্রাস্ট্রি’র চেয়ারম্যান সৈয়দা আরজুমান বানু নার্গিসের সভাপতিত্বে উৎসবে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান।
উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বছরের একটি দিন নষ্ট না করে প্রাইমারী থেকে মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষার্থীর কাছে বই পৌছে দিয়েছে। যা বিশ্বে একটা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। কারন বিশ্বের অল্প কয়েকটি দেশ আছে যারা বছরের শুরুর প্রথমদিনে শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দিতে পারে।
তিনি আরো বলেন, এই দেশকে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে শিক্ষা গ্রহনের বিকল্প নেই। নিয়মিত পড়াশুনা ও বিদ্যালয়ে ক্লাশ করলে গাইড বই বা কোচিং এর প্রয়োজন হবে না। তাছাড়া কোচিং এর ফলে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের উপর অতিরিক্ত চাপের সৃষ্টি হয়। আর এর ফলে তাদের মধ্যে লুকিয়ে থাকা সুপ্ত প্রতিভা বিকাশে বাধার সৃষ্টি হয়। শিশুদের শিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলা, সৃজনশীল কর্মকান্ড, নানা ধরনের প্রতিযোগীতা, সাংষ্কৃতিক চর্চা অত্যন্ত জরুরী। আর এই সবকিছুর মধ্যে শিশুরা প্রকৃত শিক্ষা লাভ করবে এবং উন্নত জাতিতে পরিনত হবে। তাই বিদ্যালয়ে নিয়মিত ক্লাস করা এবং বাসায় রুটিন মাফিক পড়াশুনা করার জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতি জোর আহবান জানিয়েছেন তিনি।
জেলা প্রশাসক আরো বলেন, সপ্তাহে শুক্রবার এবং শনিবার কোচিং ক্লাশ বন্ধে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে। শিশুরা এই দুইদিন একাডেমিক শিক্ষার বিপরীতে সাংষ্কৃতিক চর্চা বা অন্যকোন বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করবে।
পাঠ্যপুস্তক বিতরন উৎসবে বিশেষ অতিথি ছিলেন শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মোহাম্মদ হানিফ, গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক তপন কুমার বল, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক একেএম এনায়েত হোসেন, গ্লোবাল ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের বোর্ড অব ট্রাস্ট্রিজের ভাইস চেয়ারম্যান এস আমরিন রাখি। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন গ্লোবাল ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অধ্যক্ষ সাবেক জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার আফরোজ। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহানগর কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আনিছুর রহমান দুলালসহ সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ের রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দ।
এদিকে বিতরন উৎসবে শান্তির প্রতীক পায়রা এবং বেলুন উড়িয়ে প্রতিষ্ঠানের একাডেমিক কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমানসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ। পাঠ্যপুস্তক বিতরন উৎসবে শতাধিক শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠ্যবই বিতরন করা হয়।
উল্লেখ্য, আধুনিক উপকরন সমৃদ্ধ উন্নত পরিবেশ ও শিক্ষার্থীদের আন্তর্জাতিক মানের পাঠদানের লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করেছে গ্লোবাল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল। নগরীর উত্তর আলেকান্দার রোজ বে ভবনে অবস্থিত এই বিদ্যালয়ে হাতে খড়ি থেকে পঞ্চম শ্রেনী পর্যন্ত বাংলা এবং ইংরেজি মাধ্যমে শিক্ষা প্রদান করা হবে। প্রতিষ্ঠানটিতে ইংরেজিতে দক্ষতা অর্জনের জন্য স্পোকিং ইংলিশ ক্লাসের সুব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত দক্ষ শিক্ষক মন্ডলী দ্বারা পরিচালিত এই বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাতৃ¯েœহে পাঠদান করানো হবে। শিশুর মেধাবিকাশের জন্য ক্লাস পার্টি, বনভোজন, স্কাউটিং, সঙ্গীত ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতারও ব্যবস্থা রয়েছে। শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে অভিভাবকদের সাথে মতবিনিময় সভা এবং প্রতি শুক্রবার ফ্রি ধর্মীয় শিক্ষা প্রদান করা হবে। সিসি ক্যামেরা সমৃদ্ধ নিরাপদ এই ক্যাম্পাসে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান এবং গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে বিশেষ ছাড়। সন্তানদের ভর্তির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার পূর্বে একবার হলেও গ্লোবাল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ঘুরে দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন স্কুলের সভাপতি সৈয়দা আরজুমান বানু নার্গিস। দক্ষিণাঞ্চলের একমাত্র বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় গ্লোবাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান এই গ্লোবাল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল।