ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের নার্সেস সেবা অর্থ উপার্জনের পেশায় পরিণত

রুবেল খান॥ আগামী কাল ১২ মে নার্সদের প্রতিষ্ঠাতা ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেল’র জন্ম বার্ষিকী। প্রতি বছর এই দিনটিকে বিশ্ব নার্স দিবস হিসেবে পালন করে আসছেন দেশ বিদেশে নার্সিং পেশায় নিয়োজিতরা। ঠিক সেভাবে এ বছর তার জন্মদিন পালনে ব্যাপক আয়োজন করেছেন বরিশাল সহ বিভিন্ন স্থানের নার্সরা। তবে আশ্চর্যজনক হলেও সত্যি যে, প্রতি বছর ঘটা করে দিবস পালন করলেও বেশিভাগ নার্সদেরই জানানেই এর প্রতিষ্ঠাতা ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেল’র আত্মজীবনী এবং সেবার ধরন। ফলে নার্সেস সেবা এখন পরিনত হয়েছে শুধু মাত্র পেশা আর অর্থ উপার্জনে। একারনে মানুষ পাচ্ছে না নার্সদের কাছ থেকে প্রকৃত সেবা।
তথ্যানুসন্ধানে জানাগেছে, আগামী কাল ১২ মে বিশ্ব ব্যাপী নার্সেস দিবস পালিত হবে। ১৮২০ সনের এই দিনে নার্স সেবার প্রতিষ্ঠাতা জননী ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের জন্ম বার্ষিকী। ইতালী শহরের জন্ম গ্রহন করেছিলেন তিনি। এ কারনে তার জন্ম বার্ষিকীকেই নার্সেস দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। কেননা তিনি না জন্মালে নার্স পেশার সৃষ্টি হতো না। এমনটিই দাবী করছেন বর্তমান যুগের নার্সরা।
এদিকে ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের জীবনী খুঁজে জানাগেছে বর্নাঢ্য ইতিহাস। যার সংক্ষিপ্ত ইতিহাসে বলা যায়, ইতালীতে ক্রিমিয়ার যুদ্ধে শত শত মানুষ আহত এবং নিহত হন। আহতদের আর্তনাদে ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেল সর্ব প্রথম তাদের সেবা প্রদান করেন। তখনকার সময় বিদ্যুৎ বা বাতির কোন ব্যবস্থা ছিলো না। কিন্তু তার মধ্যেও কুপি এবং মোববাতি জালিয়ে আহত ও অসুস্থদের সেবা প্রদান করেছিলেন তিনি। বিনিময়ে চাননি কিছুই। সেই থেকেই ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেল সাধারন এবং অসহায় মানুষদের সেবায় নিজেকে অর্পন করেন। তার সেবার ধর্ম, আদর্শ আর লক্ষ পুরোটিই ছিলো ভিন্ন। শুধু মাত্র সেবা প্রদানের লক্ষেই তিনি আত্মত্যাগ করতেন। তার সেবা, ত্যাগ এবং লক্ষ থেকেই আজকের নার্সের সৃষ্টি। সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে নারীরা সব থেকে এগিয়ে থাকছেন। তাই তাদেরকে এখনো বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন। হাসপাতাল কিংবা ক্লিনিকে এখন নার্সদের কদর অনেক বেড়েছে কয়েকগুন। প্রতি মাসে মোটা অংকের সম্মানি এবং বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা প্রদান করে প্রতিষ্ঠান গুলোতে রোগীর সেবা দেয়া হচ্ছে। এর পাশাপাশি প্রতি বছর নার্সিং কলেজ গুলোতে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে যে লক্ষ নিয়ে ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেল নার্সিং পেশার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন তা আজ শুধুই স্মৃতি। কেননা বর্তমান নার্সিং সেবার চিত্র সাধারন মানুষকে শুধু পিড়াই দিয়ে যাচ্ছে।
বিশেষ করে সরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোতে গেলে নার্সদের দায়িত্ব পালন এবং সেবার নমুনা দেখে মানুষ হতাশ হচ্ছেন। রোগী এবং স্বজনদের সাথে দুর্ব্যবহার, সেবা প্রদানে অনিহা, অন্যমনস্ক ভাব, কর্মস্থলে রোগীর সেবা ফেলে রেখে পারিবারিক কাজই বলে দেয় ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের স্বপ্ন আর লক্ষ তার কোনটিই বাস্তবায়ন হচ্ছে না। এই পেশা এখন শুধু অর্থ উপার্জনের একটি সহজ ধান্ধায় পরিনত হয়েছে। মহৎ এ পেশার নাম ভাঙ্গিয়ে কেউ আবার আত্মসাত করছেন অসহায় রোগীদের প্রাপ্য সরকারী ওষুধ চুরির মত জঘন্য অপরাধ। যার ফলে এদের কারোই জানা নেই ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের সঠিক জীবনী। তিনি কে এবং কিভাবে আসলেন। এমনকি তার জন্মের সনটিও জানানেই তাদের। তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে নার্সদের সেবার নমুনা মনে করিয়ে দিচ্ছে ফ্লোরেন্স নাইটেঙ্গেলের সার্থকরা এবং সততার কথা। তখন আবার মনে হয় তার লক্ষ্য একদিন হলেও অজর্ন করবে বর্তমান সময়ের নার্সরা।
অপরদিকে বরিশাল ডিপ্লোমা নার্সেস এ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি মো. শাহাবুদ্দিন খান জানান, নার্সেস দিবস পালনের লক্ষে আগামী কাল ১২ মে তারা সংগঠনের পক্ষ থেকে নানা আয়োজন করেছেন। আয়োজনের মধ্যে থাকছে সকাল ৯টায় হাসপাতাল চত্তরে বর্ণাঢ্য র‌্যালী, ১০টায় হাসপাতালের তৃতীয় তলায় সেমিনার রুমে আলোচনা সভা, নাইটেঙ্গেলের জন্মদিন উপলক্ষে কেক টাকা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়াও উত্তম সেবা প্রদানে কয়েকজন উত্তম নার্সকে রি-এওয়ার্ড প্রদান করা হবে বলে জানান তিনি। ইতোমধ্যে সকল আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে।