ফেঁসে যাচ্ছে ববি’র ১৬ শিক্ষার্থী

এম হোসেন॥ বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় (ববি) রেজিষ্ট্রার কক্ষে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় ১৬ শিক্ষার্থী জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। গতকাল শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট সভায় ১৬ শিক্ষার্থীকে অভিযুক্ত করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হয়েছে।
তবে এ ব্যাপারে রুদ্ধদ্বার দুই ঘন্টা বৈঠক করেও চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট কমিটি। পরবর্তী সিন্ডিকেট সভায় প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে নির্ভরযোগ্য সুত্র নিশ্চিত করেছেন।তদন্ত প্রতিবেদনে অভিযুক্ত ১৬ জন শিক্ষার্থীর নাম জানাতে অপারগতা করেছে সুত্রটি।
মোট ২১ শিক্ষার্থীকে প্রাথমিকভাবে চিহিৃত করা হয়েছিলো। কিন্তু কমিটি ১৬ জনকে অভিযুক্ত করে ৫ শিক্ষার্থীকে অব্যাহতি দেয়ার সুপারিশ করেছে সুত্র জানিয়েছে ।
অপর একটি নির্ভরযোগ্য সুত্র থেকে অভিযুক্ত হওয়া  বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র মোঃ রেজা শরীফ, এনামুল হক মনি, ২য় বর্ষের মইনুল ইসলাম, মার্কেটিং বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র মোঃ আকিব জাভেদ খান, আল মামুন, তানভীর, ২য় বর্ষের মোঃ মেহেদী হাসান, মোঃ সিদ্দিক, অর্থনীতি বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র মোঃ সাইফুল ইসলাম ও লোকমান হোসেন(রাব্বি), সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র মোঃ ফয়সাল ও ২য় বর্ষের ছাত্র মোঃ কাইয়ুম, লোক প্রশাসন বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র মোঃ আবু ছালেহ, মোঃ সাব্বির ও ১ম বর্ষের সাওন এবং ইংরেজী বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র পলাশ ঘোষের নাম জানা গেছে।
বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ জুন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার কক্ষে কতিপয় শিক্ষার্থী অতর্কিত হামলা ও ভাংচুর চালায়। পাশাপাশি সহকারী রেজিস্ট্রার মোঃ বাহাউদ্দিন গোলাপকে মারধর করে। ঘটনার দিনই বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ৪জন শিক্ষার্থী ও অজ্ঞাত নামা আরো ৫০ জনকে অভিযুক্ত করে মামলা দায়ের করে। পরে ১৩ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশীট দেয়া হয়েছে।
এছাড়া গত ৩০ জুন বিশ্ববিদ্যালয় ২৫ তম সিন্ডিকেট সভায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢাকা লিয়াজো অফিসে জরুরী এক বৈঠকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ শিক্ষার্থীকে সাময়িক বহিস্কার করে। একই সাথে অধিকতর তদন্তের জন্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর মোঃ হানিফকে প্রধান করে ৭ সদস্য বিশিস্ট উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিকে ২৮ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেয়া নির্দেশ দেন সিন্ডিকেট।  তবে কমিটি ৯০ দিন পার হলেও তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে পারেনি।
এ ব্যাপারে বরিশাল বিশ্ববিদ্যলয় সহকারী রেজিস্ট্রার মোঃ বাহাউদ্দিন  গোলাপ বলেন, এই বিষয়ে অবগত না। তবে আমি বিশ্বাস করি তদন্ত কমিটি সুবিচার করতে দ্বিধা করবে না।
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী ও ছাত্রদল নেতা মোঃ ফয়সাল বলেন আমরা রাজনীতির শিকার হয়েছি। তিনি আরো বলেন তদন্ত কমিটি পক্ষপাত দোষে দুষ্ট।
সিন্ডিকেট সদস্য বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মোঃ জিয়াউল হক বলেন তদন্ত কমিটি ১৬ জনকে অভিযুক্ত করে প্রতিবেদন জমা দিযেছে। পরবর্তী সিন্ডিকেট সভায় প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।