ফুটপাত দখলকারী ভ্রাম্যমান বিক্রেতাদের পক্ষ নিয়ে বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ অবৈধভাবে ফুটপাত দখলকারী ভ্রাম্যমান বিক্রেতাদের পক্ষ নিয়ে সড়ক অবরোধ এবং বিক্ষোভ মিছিল করেছে নগরীর বাজার রোডের ব্যবসায়ীদের একাংশ। গতকাল সোমবার ঐ এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান পরিচালনা কালে বেলা সাড়ে ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত কতিপয় ব্যবসায়ী তাদের দোকান পাট বন্ধ রেখে বিক্ষোভ করে। পরবর্তীতে জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনা হয়েছে।
ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকারী জেলা প্রশাসনের নির্বাহী হাকিম কল্যাণ চৌধুরী বলেন, দীর্ঘ দিন যাবত বাজার রোডে ফুটপাত দখল করে এক শ্রেণির মানুষ ছোট ছোট ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছে। এ কারণে ক্রেতাদের পথ চলায় ভোগান্তি এবং রাস্তায় যান জটের সৃষ্টি হয়। যে কারণে গতকাল সোমবার তিনি এবং এসিল্যান্ড মো. ইলিয়াছুর রহমান ঐ এলাকায় ফুটপাত দখল মুক্তকরন অভিযান চালান। এসময় ফুটপাত দখল করে ব্যবসা করা এক চা-সিগারেটের দোকানীকে ৮শ টাকা জরিমানাও করেছেন তারা।
তিনি বলেন, গতকাল তারা যে অভিযানটি চালিয়েছেন তা বাজার রোডের ব্যবসায়ীদের ভালোর জন্যই করেছিলেন। কিন্তু ব্যবসায়ীরা অহেতুক দোকান পাট বন্ধ করে সড়ক অবরোধ এবং বিক্ষোভের মাধ্যমে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কল্যাণ চৌধুরী।
এব্যাপারে বাজার রোড ব্যবসায়ী সমিতির প্রচার সম্পাদক মো. খালিল খান জানান, দু’দিন এক দিন পর পরই বাজার রোডে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালানো হয়। এক দিন পর পর অভিযানের কারণে ব্যবসায়ীদের ভোগান্তি এবং হয়রানির শিকার হতে হয়। প্রশাসনকে এ বিষয়ে একাধিকবার বলা সত্ত্বেও তারা বিষয়টির প্রতি গুরুত্ব দিচ্ছে না। যে কারণে বাধ্য হয়ে গতকাল সোমবার ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চলাকালে তারা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে বিক্ষোভ করেন। তাদের দাবী অভিযান চলবে। তবে তা বেশি হলে মাসে একবার। এতে ব্যবসায়ীরা হয়রানি থেকে মুক্তি পাবে।
এদিকে ব্যবসায়ীদের সড়ক অবরোধ এবং বিক্ষোভের কারণে বাজার রোড এলাকায় সকল প্রকার যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বাজার রোড সহ আশেপাশের সড়কগুলোতে ব্যাপক যানজটে সীমাহীন ভোগান্তির সৃষ্টি হয় সাধারণ মানুষের। খবর পেয়ে বরিশাল জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আবুল কালাম আজাদ সহ অন্যান্য কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। তিনি গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। উল্লেখ্য, নগরীর বাজার রোড ও চকবাজার এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা ফুটপাত দখল করার কারণে ঐ এলাকায় পথচারীদের ব্যাপক ভোগান্তির সৃষ্টি হয়। জেলা প্রশাসন বরাবরে লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতকাল ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান পরিচালনা করে।