প্রেমে প্রত্যাখ্যাত বখাটের হাতে বিএম কলেজে দুই ছাত্রী প্রকাশ্যে শারীরিক লাঞ্চিত

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ প্রেমে প্রত্যাখ্যাত হয়ে বিএম কলেজের দুই ছাত্রীকে প্রকাশ্যে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছে ছাত্রলীগের এক নেতা। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে কলেজের জিরো পয়েন্টে এই ঘটনা ঘটেছে। লাঞ্চিত দুই ছাত্রী অভিযোগ করেছেন, প্রকাশ্যে ওই ঘটনা ঘটলেও ভয়ে কেউ এগিয়ে আসেনি। এমনকি বিচারের জন্য লিখিত অভিযোগ দেয়ার পরেও কলেজ কর্তৃপক্ষ নিরব।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, কলেজ ছাত্রলীগ নেতা নামধারী বখাটে আব্দুর রহিম তার বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। কিন্তু ওই ছাত্রী ছাত্রলীগ নেতার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। দীর্ঘ দিন পূর্বের এই ঘটনায় ক্ষিপ্ত রহিম সহযোগিদের নিয়ে ছাত্রীকে উত্যক্ত করে। এমনকি ছাত্রীর বাসার সামনে গিয়ে আড্ডা এবং মোবাইল নম্বরে কল দিয়ে রাত দিন উত্ত্যক্ত করে। তাই ছাত্রী মোবাইল ফোন ব্যবহার বন্ধ করে দিয়েছে। বুধবার ছাত্রীর বান্ধবীর কাছে মোবাইল নম্বর চায় রহিম। কিন্তু সে নম্বর না দিয়ে ছাত্রীর সাথে যোগাযোগ নেই বলে এড়িয়ে যায়। বৃহস্পতিবার দুই বান্ধবী কলেজে পরীক্ষায় অংশ নিতে আসে। জিরো পয়েন্টে তাদের দুজনের পথরোধ করে প্রেমের প্রস্তাব মেনে নেয়ার দাবি করে ছাত্রলীগ নেতা বখাটে রহিম। কিন্তু ছাত্রী পূর্বের সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছে জানানোর সাথে সাথে বখাটে রহিম তাকে প্রকাশ্যে চড় দেয়া শুরু করে। এই সময় ক্যাম্পাসে উপস্থিত সকলে এগিয়ে না এলেও বান্ধবীকে রক্ষা করতে গিয়ে বখাটে রহিমের লাথি-ঘুষির আঘাতে জর্জরিত হয় অপর ছাত্রী। সাথে তো বখাটের অকথ্য ভাষায় গালা-গালি জুটেছেই। এক পর্যায়ে অন্যান্যরা এগিয়ে এসে ছাত্রীদ্বয়কে উদ্ধার করে। ঘটনার পর দুই ছাত্রী লাঞ্ছিতের ঘটনায় কলেজ অধ্যক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ দেয়।
অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা স্বীকার করে অধ্যক্ষ ফজলুল হক বলেন, তারা বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন। আর এ তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক এএসএম কাইয়ুম উদ্দিনকে। তদন্তে অভিযোগ প্রমানিত হলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে অধ্যক্ষ জানিয়েছেন।