প্রবাসীকে জিম্মি করে উৎকোচ আদায় দারোগা রেহান ক্লোজ, তদন্তে কমিটি গঠন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ মহানগর পুলিশ বিমানবন্দর থানার এক উপ-পরিদর্শককে (এসআই) প্রবাসীর কাছ থেকে উৎকোচ আদায়ের অভিযোগে লাইনে প্রত্যাহার (ক্লোজ) করা হয়েছে।
মঙ্গলবার রাতে মহানগর পুলিশ লাইনে ক্লোজ করে নেয়া এসআই হলো মো. রেহানউদ্দিন।
মহানগর পুলিশের মুখপাত্র সহকারি পুলিশ কমিশনার আবু সাঈদ পূর্ব পশ্চিমকে জানান, মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ কমিশনারের কাছে এক প্রবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনার প্রাথমিক তদন্তের জন্য বিমান বন্দর থানার সহকারী কমিশনার আজাদ রহমানকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
প্রবাসীর অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, নগরীর ২২ নং ওয়ার্ড শহীদ জিয়া সড়কের বাসিন্দা মো. মোকছেদ তার প্রবাসী বন্ধু মো. সালাউদ্দিনকে নিয়ে গত ১ ফেব্রুয়ারী রাত সাড়ে ৮ টায় নগরীর নথুল¬াবাদ বাস টার্মিনালের আল্লারদান হোটেলে খাবার খেতে বসে। এর আগে মোকছেদ তার প্রবাসি ভগ্নিপতির পাঠানো ২০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে উত্তোলন করেন। হোটেলে খাবার খেয়ে তারা বের হলে সেখানে উপস্থিত হয় বিমান বন্দর থানার এসআই রেহান উদ্দিন।
এসময় এসআই রেহান মোটর সাইকেল থেকে নেমে মোকছেদ ও তার প্রবাসি বন্ধুর জ্যাকেটের কলার ধরে। এ অবস্থায় তাদের নাম ঠিকানা জানতে চায়। এক পর্যায় জ্যাকেটের টুপিতে হাত দিয়ে পরিকল্পিতভাবে একটি প্যাকেট বেড় করে রেহান। যে প্যাকেটে কিছু ট্যাবলেট দেখা যায়। এরপর ট্যাবলেটের বিষয়ে তাদের কে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা কিছু জানেনা বলে জানালে তাদের ওই এলাকার ধানসিড়ি হোটেলের পিছনে নিয়ে যায় এসআই রেহান । সেখানে তাদের বিরুদ্ধে ইয়াবাসহ মামলা দেয়ার হুমকী দিয়ে ৫০ হাজার টাকা দাবী করে রেহান।
এক পর্যায় তার হুমকী-ধামকীতে আতংকিত মোকছেদ নগদ ১১ হাজার টাকা দিয়ে তার প্রবাসি বন্ধুকে নিয়ে সেখান থেকে চলে যায়।
বিমান বন্দর থানার সহকারী পুলিশ কমিশনার আজাদ রহমান পূর্ব পশ্চিমকে জানান, অভিযোগটি পেয়ে মাঠ পর্যায় তদন্ত করা হচ্ছে। অভিযোগের সত্যতা পেলে এসআই রেহান উদ্দিনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।