পুলিশ লাইনের আরআইসহ তিন জনের বিরুদ্ধে নারীদের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ জেলা পুলিশ লাইনের পরিদর্শ (আরআই) নুরুল ইসলাম, আরও কবির ও হুমায়ুনের বিরুদ্ধে নারী সদস্যরা যৌন নিপীড়নের চেষ্টা ও নির্যাতন চালানোর অভিযোগ করেছে। গতকার রোববার পাওয়া এই অভিযোগের অনুলিপি বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি, বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি, পুলিশ হেড কোয়ার্টার এর সিকিউরিটি সেল এ আইজি এবং বরিশাল পুলিশ সুপার বরাবর দেয়া হয়েছে।
জেলা নারী পুলিশ সদস্যদের লিখিত অভিযোগে জানা যায়, আরআই নুরুল ইসলাম, আরও কবির ও হুমায়ন এর দুশ্চরিত্রপনার ও বিকৃত নির্যাতনের কথা। নারী পুলিশ সদস্যদের পোষ্টিং ও শাস্তির ভয় দেখিয়ে ঐ তিন পুলিশ কর্তা করে এ সকল অপকর্ম। তাদের এ সকল কাজে সায় না দিলে চলে বিভিন্ন ধরনের অফিসিয়াল নির্যাতন। বিনা কারনে বিভিন্ন সময়ে অফিস থেকে তাদের পুলিশ লাইনে এনে রাখে তারা। কোন আদেশ ছাড়াই পুলিশ লাইনে ক্লোস করে রাখা হয় তাদের। লাইনে থাকাকালিন সময় কাজের ছলে বিভিন্ন ধরনের কু-প্রস্তাব দেয় আরআই নুরুল ইসলাম বলে অভিযোগে জানায় তারা। আর তার কথায় রাজী না হলেই শুনতে হয় বদলী সহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি। শুধু হুমকিতে খ্যান্ত না হয়ে বিভিন্ন ধরনের শাস্তীও পেতে হয় নারী পুলিশদের। লাইনের ২নং গেটে যেখানে পুরুষ পুলিশ সদস্যরা খালি হাতে ডিউটি করে সেখানে শাস্তি স্বরূপ তাদের করতে হয় ভারী অস্ত্র নিয়ে। অনেক সময় তাদের ঐ পুলিশ কর্তাদের গৃহপরিচালিকার কাজও করতে হয়। আর কোন নারী পুলিশ একা থাকলে তখনই অভিযুক্তরা এসে বিভিন্ন অজুহাতে তাদের সম্ভ্রমহানীর মত ঘৃন্য চেষ্টা চালায় বলেও জানিয়েছেন অভিযোগকারীরা। তাদের বিরুদ্ধে এমন কাজের নালিশ উচ্চ পদস্থ পুলিশ কর্মকর্তাদের কাছে দেয়া কথা বললে তুচ্ছজ্ঞান করেন অভিযুক্তরা। তাদের কথা তারাই সর্বোচ্চ কর্তা। পুলিশের বড় কর্তা যেমন এসপি, ডিআইজি তাদের কিছুই করতে পারবেনা। তাই সম্ভ্রম রক্ষার্থে উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সহযোগীতাও চেয়েছেন বরিশাল জেলা নারী পুলিশের সদস্যাবৃন্দ। এ বিষয়ে অভিযুক্ত জেলা পুলিশের আরআই নুরুল ইসলাম বলেন, কে বা কারা অভিযোগ দিয়েছেন তিনি এর কিছুই জানেন না। এগুলো পুরোপুরি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। তিনি নিজেও পুলিশ কনস্টেবল থেকে বর্তমান অবস্থানে এসেছেন বলে আরও বলেন, একজন কনস্টেবলের সমস্যা তিনি ভাল করেই বোঝেন তাই নির্যাতনের প্রশ্নই আসে না। তিনি তার উচ্চ পদস্থদের নির্দেশ ছাড়া কোন কিছুই করেন না বলেও জানায় আরআই নুরুল ইসলাম।