পিরোজপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণ গেল স্বামীর, গুরুতর আহত হল স্ত্রী

পিরোজপুর প্রতিবেদক॥ স্ত্রীর মনের চাহিদা মিটাতে গিয়ে পিরোজপুর সদর উপজেলার রাণীপুর গ্রামে শুক্রবার সড়ক দূর্ঘটনায় প্রাণ দিতে হল এক স্বামীর। আর এই দূর্ঘটনায় মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে নিহতের স্ত্রী।
নিহত তুহিন (৪০) খুলনা শহরের টুটপাড়া এলাকার মৃত আঃ রশিদ আকনের ছেলে।
পিরোজপুর সদর থানা সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে তুহিন ও তার স্ত্রী ফারজানা ফেরদৌস পিরোজপুর শহরের পুরাতন বাস টার্মিনালের কাছ থেকে মটরসাইকেল যোগে খুলনা- বরিশাল সড়কের কঁচা নদীর বেকুটিয়া ঘাটের দিকে যাচ্ছিল। রাত গভীর হওয়ায় পুলিশ তাদের সিগনাল দিয়ে থামতে বলে। কিন্তু তারা পুলিশের তিনটি সিগন্যাল অমান্য করে ফেরিঘাটের দিকে চলে যায়। পুলিশও বেকুটিয়া ফেরিঘাটে গিয়ে ওই দুই মটরসাইকেল আরোহীকে ধরে ফেরে এবং তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে। তাদের কথাবার্তা সন্দেহজনক হওয়ায় পুলিশ ওই স্বামী-স্ত্রীকে তাদের গাড়িতে তুলে থানায় নিয়ে আসতে চায়। এ সময় তুহিন জানায় সে নিজেই গাড়ি চালিয়ে থানায় যাবে। এ সুযোগে সে আবারও খুলনায় ফেরার চেষ্টায় বেপরোয়াভাবে মটর সাইকেল চালাতে শুরু করে। পথিমধ্যে রাণিপুর নামক স্থানের একটি বাঁকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মটরসাইকেলটি ছিটকে পড়ে। এ সময় তুহিন রাস্তার পাশের একটি গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে মাথায় মারাত্মক আঘাত পায়। পরে পুলিশের ওই গাড়িটি তাদের উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে আনার পর তুহিন মারা যায়।
পিরোজপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তুহিনের স্ত্রী ফারজানা জানায়, তারা রাত সাড়ে ১২ টার দিকে খুলনা থেকে কুয়াকাটায় ঘোরার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।