পাকিস্তানের লজ্জাজনক হার

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ এই প্রথমবারের মতো উপমহাদেশের কোনও বিশ্বকাপ জয়ী দলকে ”বাংলাওয়াশ” করল বাংলাদেশ। সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে পাকিস্তানকে ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে মাশরাফি বাহিনী। এই জয়ের ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতে নিল বাংলাদেশ।
এনিয়ে টানা দ্বিতীয় ও সব মিলিয়ে দশমবারের মতো সিরিজের সব ম্যাচে জিতল বাংলাদেশ। এর আগে দুইবার করে নিউ জিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে ও কেনিয়া এবং একবার করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আয়ারল্যান্ড ও স্কটল্যান্ডকে সিরিজের সব ম্যাচে হারায় বাংলাদেশ। ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে আইসিসির ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের সঙ্গে ব্যবধান কমিয়েছেন মাশরাফিরা।
মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে পাকিস্তানের ছুড়ে দেওয়া ২৫১ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে সহজেই জয় নিশ্চিত করে টাইগাররা। যাতে মূল প্রভাবক হিসেবে কাজ করেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। তাদের উদ্বোধনী জুটিতেই আসে ১৪৫ রান। তামিম ইকবাল ৬৪ রানে বিদায় নিলেও বাকি কাজ একাই সারেন বাঁহাতি ওপেনার সৌম্য। ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি করেন তিনি। তামিম ও সৌম্যের ১৪৫ রানের জুটি ভাঙেন জুনায়েদ। ২৬তম ওভারে তামিমকে এলবিডব্লু করেন তিনি। দুর্দান্ত ফর্মে থাকা তামিম আউট হবার আগে ৭৬ বলে ৬৪ রান করেন তিনি। এর আগে ব্যাক টু ব্যাক সেঞ্চুরি হাকানোর গৌরব অর্জন করেন। তামিমের পর জুনায়েদের দ্বিতীয় শিকার হলেন মাহমুদউল্লাহ। দলীয় ১৫৪ রানে জুনায়েদের বলে চার রান করে সরাসরি বোল্ড হন তিনি। এর আগে শুরুটা ভালো করলেও বাংলাদেশের বোলিং তোপে শেষের দিকে যাওয়া-আসার মিছিলে ব্যস্ত ছিল পাকিস্তান। সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে ৪৯ ওভারে ২৫০ রানেই গুটিয়ে যায় তাদের ইনিংস। সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে বাংলাদেশের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুভ সূচনা করে পাকিস্তান। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান আজহার আলী ও সামি আসলামের ব্যাটিংয়ে ভালোই জুটি গড়তে থাকেন তারা। ১৮তম ওভারে তাদের ৯২ রানের জুটি ভাঙেন নাসির হোসেন। তার বলে উইকেটরক্ষক মুশফিকের কাছে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন সামি আসলাম। আউট হওয়ার আগে ব্যাট হাতে ৫০ বলে ৪৫ রান করেন তিনি। নাসিরের পর পাকিস্তান শিবিরে দ্বিতীয়বার আঘাত হানেন আরাফাত সানি। দলীয় ১০৫ রানে মোহাম্মদ হাফিজকে ব্যক্তিগত ৪ রানে বোল্ড করেন তিনি। এরপর হারিস সোহেলকে নিয়ে জুটি গড়তে থাকেন আজহার। তাকে সঙ্গে নিয়ে আজহার আলী তুলে নেন তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম শতক। শতকের পর আজহার ও হারিস সোহেলের ৯৮ রানের জুটি ভাঙেন সাকিব আল হাসান। আজহারকে বোল্ড করেন তিনি। আউট হওয়ার আগে ১১২ বলে ১০১ রান করেন তিনি। এর ঠিক পরের ওভারে দলীয় ২০৭ রানে হারিস সোহেলকে ফেরান অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। হারিস করেন ৫৮ বলে ৫৩ রান। ৪১তম ওভারে এসে দলীয় ২১৩ রানে সাকিবের কাছে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে তার দ্বিতীয় উইকেটের শিকার হন মোহাম্মদ রিজওয়ান (৪)। এর ফলে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে পাকিস্তান। দলীয় ২২৪ রানে মাশরাফির বলে নাসিরের কাছে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ফাওয়াদ আলম (৪)। দলীয় ২৪৩ রানে রুবেল হোসেনের বলে আউট হন ওয়াহাব রিয়াজ (৭)। এরপর ৭ রানের মধ্যে পাকিস্তানের চার ব্যাটসম্যান আউট হলে ২৫০ রানেই গুটিয়ে যায় তাদের ইনিংস। বাংলাদেশের পক্ষে দুটি করে উইকেট পান সাকিব আল হাসান, মাশরাফি বিন মুর্তজা, আরাফাত সানি ও রুবেল হোসেন। এছাড়া একটি উইকেট নেন নাসির হোসেন।

 
বিসিসি মেয়রের অভিনন্দন
পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ঐতিহাসিক বিজয়ে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আহসান হাবিব কামাল। খবর বিজ্ঞপ্তির।

এ্যাড. বলরাম পোদ্দারের শুভেচ্ছা
পাকিস্তানকে অনায়াসে তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে হারিয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। এই জয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সকল খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা এবং খেলাভক্ত দর্শকদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অগ্রণী ব্যাংকের পরিচালক এ্যাড. বলরাম পোদ্দার। খবর বিজ্ঞপ্তির

কাজী মিরাজের শুভেচ্ছা

পাকিস্তানের সাথে ঐতিহাসিক বিজয়ে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন পরিবর্তন সম্পাদক কাজী মিরাজ। এই জয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সকল খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের দক্ষতার প্রশংসা করেছেন তিনি।