পরিবর্তনে সংবাদ প্রকাশের পর অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনকারী বলগেট জব্দ ॥ প্যানেল মেয়র বাদশার শ্রমিকের কারাদন্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে কীর্তনখোলা নদীতে বালু ভরাট করে শহর রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করায় একটি বলগেট জব্দ করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। এসময় প্যানেল মেয়র মোশারেফ আলী খান বাদশার সোহাগ নামের এক শ্রমিককে ২ মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়। গত ১ মে রবিবার দুপুরে নগরীর আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতু সংলগ্ন কীর্তনখোলা নদীতে এই অভিযান চালান জেলা প্রশাসনের নির্বাহী হাকিম ইলিয়াছুর রহমান। অভিযান পরিচালনাকালে পুলিশের একটি টিম ভ্রাম্যমান আদালতকে সহযোগিতা করে।
উল্লে¬খ্য, সম্প্রতি উচ্চ আদালতের নির্দেশে কীর্তনখোলা নদী ভরাট করে শহর রক্ষা বাঁধ নির্মান কাজ বন্ধ করে দেন বরিশাল জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান। গত ২৭ এপ্রিল বুধবার কাজ বন্ধের পর ঐ দিন নদী দখল করে বাঁধ নির্মান কাজ বন্ধ ছিলো। তবে এর পর দিন অর্থাৎ ২৮ এপ্রিল সকাল থেকে পূনরায় ড্রেজারের মাধ্যমে বালু দিয়ে কীর্তনখোলা নদীর কিছু অংশ ভরাট করে শহর রক্ষা বাঁধের কাজ চালিয়ে যান বিসিসি’র প্যানেল মেয়র-২ ও ১৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোশারেফ আলী খান বাদশা। এ নিয়ে গত ৩০ এপ্রিল আজকের পরিবর্তনে একটি স্ব-চিত্র সংবাদ প্রকাশিত হয়।
এর পর পরই গত ১ মে বেলা সাড়ে ১২টায় বরিশাল জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান এর নেতৃত্বে শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতু সংলগ্ন দপদপিয়া অংশে অবৈধ ভাবে বাঁধ নির্মান করার স্থানে অভিযান চালান। এসময় তার নির্দেশে বালু উত্তোলন এবং ভরাটকারী বলগেটটি জব্দ করা হয়। একই সাথে বলগেট পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সোহাগ নামের এক যুবককে ২ মাসের করাদন্ড প্রদান করেন জেলা প্রশাসকের সাথে থাকা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. ইলিয়াছুর রহমান।