পরিবর্তনে সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন ওএসডি

রুবেল খান॥ আজকের পরিবর্তনে সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে চেয়ার হারালো বরিশাল গনপূর্ত বিভাগের দুর্নীতিবাজ নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জাকির হোসেন। তার দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্যের ফিরিস্তি তুলে ধরে দুটি সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বরিশাল থেকে তাকে গণপূর্ত অধিদপ্তরে ওএসডি করা হয়। দুপুর ২টা ২ মিনিটে প্রেরিত গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. কবির আহম্মেদ ভুইয়া এবং তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী (সংস্থাপন) সারওয়ার আহম্মেদ স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তাকে এই নির্দেশ প্রদান করা হয়। একই সাথে জাকির হোসেন এর সহযোগী দুর্নীতিবাজ ঠিকাদারদের বিরুদ্ধেও তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে গণপূর্ত অধিদপ্তর।
এদিকে দুর্নীতিবাজ এবং ঘুষ বানিজ্যের মূল হোতা নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন’র ওএসডি’র খবরে ঘুম হারাম হয়ে গেছে তার সহযোগী দুর্নীতিবাজ ঠিকাদারদের। তারা জাকির হোসেন এর ওএসডি ঠেকাবার পাশাপাশি নিজেদের দুর্নীতি ধামা চাপা দিতে প্রায় কোটি টাকার বাণিজ্যে নেমেছে। এমনকি দুর্নীতিবাজ জাকির হোসেন এর ওএসডি ঠেকাতে গতকাল বৃহস্পতিবার অবৈধ গণপূর্ত ঠিকাদার কল্যান সমিতির ব্যানারে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর নিকট একটি স্মারক লিপি প্রদান করেছে বলেও খবর পাওয়া গেছে। স্মারক লিপি প্রদানের বিষয়ে সত্যতা শিকার করলেও তাতে কি লেখা রয়েছে এখন পর্যন্ত দেখা হয়নি বলে জানিয়েছেন গণপূর্ত সার্কেল বিভাগের তত্তাবধায়ক প্রকৌশলী মনিরুল হক।
গণপূর্ত অধিদপ্তরের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, বরিশাল গণপূর্ত নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন এর বিরুদ্ধে ঠিকাদারদের নামে বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাত, ভুয়া বিল ভাউচার করে তার সহযোগী ঠিকাদারদের নিয়ে সরকারী অর্থ লুটপাট, ঠিকাদারদের উপর হামলা এবং সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার অভিযোগ রয়েছে। বিভিন্ন সময় এসব বিষয়ে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ সহ স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। কিন্তু নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন কৌশলে সেসব অভিযোগগুলো কর্মকর্তাদের হাতে পৌছাবার আগেই তা গায়েব করে ফেলে। তবে শেষ পর্যন্ত বরিশাল থেকে প্রকাশিত দৈনিক আজকের পরিবর্তন পত্রিকায় গত ২৮ জুলাই নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেন এর দুর্নীতি এবং সরকারী অর্থ কেলেংকারির বিষয় নিয়ে প্রকাশিত একটি সংবাদ ডাক যোগে প্রধান প্রকৌশলীর কার্যালয়ে পৌছায়। এর সূত্র ধরে জাকির হোসেনকে বরিশাল গনপূর্ত নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে ওএসডি করে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। গত বুধবার অফিস শেষ আওয়ারে তার বিরুদ্ধে ওএসডি’র এই প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। তবে ওই পদে কাকে দায়িত্ব দেয়া হবে সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।
জাকির হোসেনকে ওএসডি করে ফ্যাক্স যোগে ২৫.৩৬.০০০০.২১১.১৯.১০৩.১২-১৩৭৮/(৩০) স্মারকে পাঠানো প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, বিসিএস (গণপূর্ত) ক্যাডারের বরিশাল গনপূর্ত নির্বাহী প্রকৌশলী (সিভিল) মোহাম্মদ জাকির হোসেনকে জনস্বার্থে বদলী পূর্বক পূনরাদেশ না দেয়া পর্যন্ত তাকে গণপূর্ত অধিদপ্তর, ঢাকা এর নির্বাহী প্রকৌশলী (রিজার্ভ) পদায়ন করা হলো। একই সাথে এই আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।
এদিকে গণপূর্ত বরিশাল সার্কেল অফিসের একাধিক সূত্র জানায়, গতকাল বৃহস্পতিবার নির্বাহী প্রকৌশলীর ওএসডি’র আদেশ বরিশালে পৌছাবার সাথে সাথে ঘুম হারাম হয়ে যায় অবৈধ গণপূর্ত ঠিকাদার কল্যান সমিতির কতিপয় দুর্নীতিবাজ ঠিকাদার দের। কাজের নামে সরকারের কোটি কোটি টাকা লুটপাটের বিষয়টি ফাঁস হয়ে যাওয়ার ভয়ে জাকির হোসেন এর ওএসডি আদেশ বাতিলের দাবীতে সার্কেল কার্যালয়ে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন তার সহযোগী দুর্নীতিবাজ ঠিকাদাররা। এর সাথে অবৈধ ভাবে সুযোগ সুবিধা ভোগকারী গণপূর্ত নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ের কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মচারীরাও জড়িত রয়েছে বলে জানিয়েছে সার্কেল অফিসের সূত্রটি। তবে জাকির হোসেন এর ওএসডি’র খবরে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলতে দেখা গেছে জাকির হোসেনের হাতে শারীরিক এবং মানষিক নির্যাতনের শিকার সাধারন ঠিকাদারদের।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মনিরুল হক বলেন, নির্বাহী প্রকৌশলী জাকির হোসেনকে অনেক আগে থেকেই বদলি করার কথা ছিলো। তবে গতকাল তাকে ওএসডি করে বদলির একটি আদেশ বরিশালে পাঠানো হয়েছে। তবে কি কারনে ওএসডি করা হলো তা আমার জানানেই।
জাকির হোসেন এর পক্ষে স্মারকলিপি প্রদানের বিষয়ে তিনি বলেন, আমি একটু অফিসের কাজে বাইরে ছিলাম। তাই আমার কাছে কেউ স্মারকলিপি দেয়নি। তবে আমার অফিসে টেবিলের উপরে একটি কাগজ দেখেছি। হয়তোবা সেটাই স্মারকলিপি হতে পারে। অফিস খোলা তারিখে বিষয়টি ভালো ভাবে দেখা হবে বলেও জানিয়েছেন সার্কেল অফিসের এই কর্মকর্তা।