নিষিদ্ধ এন্টিবায়োটিক উৎপাদনের দায়ে মেডিমেট ফার্মাসিটিউক্যালকে জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ উৎপাদন নিষিদ্ধ এন্টিবায়োটিক ঔষধ উৎপাদন, ভুয়া লেবেল লাগানো এবং গুদামজাত করার অভিযোগে বরিশালের মেডিমেট ফার্মাসিটিউক্যাল কোম্পানিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। এছাড়াও অবৈধভাবে উৎপাদনকৃত বিপুল পরিমান এন্টিবায়োটিক ক্যাপসুল ও সিরাপ ধ্বংস করা হয়েছে। গতকাল শনিবার ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী হাকিম হিসেবে সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাজমুল হুসেইন খান ওই আদেশ দেন।
এর আগে নগরীর রুপাতলী এলাকার মেডিমেট ফার্মাসিটিউক্যাল কোম্পানিতে অভিযান চালায় র‌্যাব-৮ এর একটি টিম। এসময় উৎপাদনকৃত এন্টিবায়োটিক সিরাপে ২০১৬ সালের জুনের মেয়াদ দেয়া লেভেল সিরাপের বোতলে লাগিয়ে গুদামজাত করার সময় হাতেনাতে ধরে ফেলেন। এছাড়াও উচ্চ আদালত থেকে উৎপাদন এবং বাজারজাতকরনে নিষেধাজ্ঞা দেয়া ফ্লুক্সাসিলিন ক্যাপসুল জব্দ করে র‌্যাবের অভিযানিক দলটি। এর মধ্যে ৮২ হাজার পিস ফ্লুক্সাসিলিন ক্যাপসুল এবং এ্যামোক্সাসিলিন গ্রুপের পেনিসিলিন হাইকোনমিল নামক তিন হাজার ৪শ বোতল ড্রাই সিরাপ।
সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাজমুল হুসেইন খান বলেন, চলতি বছরের ২৭ ফেব্রুয়ারি উচ্চ আদালত থেকে ১৮টি ওষুধ কোম্পানিতে উৎপাদিত পেনিসিলিন (এন্ট্রিবায়োটিক) জাতীয় ওষুধ উৎপাদন এবং গুদামজাতের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। কিন্তু আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে বরিশাল নগরীর রূপাতলী এলাকার মেডিমেট ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানিতে নিষিদ্ধ ঘোষিত এ্যামোক্সাসিলিন সিরাপ এবং ফ্লুক্সাসিলিন ক্যাপসুল উৎপাদন ও গুদামজাত করে আসছিলো।
তিনি বলেন, পূর্বে উৎপাদিক এসব নিষিদ্ধ ওষুধ বাজারজাত করনের লক্ষ্যে ২০১৬ সালের জুন মাসে উৎপাদনের তারিখ উল্লেখ করে সিরাপের বোতলে লেবেল লাগানো হচ্ছিলো। এসময় র‌্যাব-৮ এর একটি টিম বরিশাল ওষুধ প্রশাসনের তত্ত্বাবধায়ক তানভির আহমেদ এর উপস্থিতিতে কোম্পানিতে অভিযান চালিয়ে মেডিমেট কোম্পানির অনৈতিক কার্যকলাপ হাতে নাতে ধরে ফেলেন।
পরবর্তীতে অবৈধভাবে ওষুধ উৎপাদন, গুদামজাদ এবং বেআইনী ভাবে ওষুধের গায়ে ভূয়া মেয়াদ লাগানোর অপরাধে প্রতিষ্ঠানটিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেয়া হয়েছে। এছাড়া উৎপাদনকৃত নিষিদ্ধ ওষুধের বোতল ভেঙ্গে এবং ক্যাপসুল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাজমুল হুসেইন খান।