নলছিটিতে মা-বাবা ও ভাইকে বেঁধে ছাত্রী ধর্ষণে আটক-২

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ নলছিটিতে সিঁদ কেটে ঘরে প্রবেশ করে মা-বাবা ও ভাইকে বেধে রেখে ৮ম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষনের অভিযোগে  দুই বখাটেকে আটক করেছে পুলিশ। উপজেলার সূর্যপাশা গ্রামের এই ঘটনায় আটক মল্লিকপুর গ্রামের হাবিব হাওলাদারের বখাটে ছেলে রায়হান ও একই গ্রামের কালুর ছেলে সুমনকে (২১) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া দুই যুবক ক্ষমতাসীন দলের নেতা।
ধর্ষিতার পরিবার অভিযোগ করেছে, গত ৪ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে রাস্তার পাশের নির্জন ঘরের সিঁদ কেটে মুখোশ পরিহিত দুই বখাটে প্রবেশ করে। পরে তারা সামনের বারান্দায় ঘুমিয়ে থাকা বাবা ও ভাইকে মারধর করে আটকে রাখে। সেখান থেকে ভিতরের কক্ষে গিয়ে মাকে বেধে ফেলে। পরে তারা মায়ের সাথে ঘুমিয়ে থাকা নলছিটি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষন করে। এক পর্যায়ে টানা হেচরায় এক বখাটের মুখোশ খুলে গেলে তাকে চিনতে পারে। কন্যার ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে পরদিন থানায় দস্যুতার অভিযোগে মামলা করে বাবা। পুলিশ ক্ষমতাসীন দলের বিদেশ সফর ফেরত উপজেলা চেয়ারম্যানের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের স্থান থেকে ধর্ষক রায়হানকে (২০) গ্রেপ্তার করে। সে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে, ছাত্রীকে কু প্রস্তাব দিয়ে তারা উত্যক্ত করতো। এর ধারাবাহিকতায়  তারা ১০ বন্ধু পরিকল্পনা করে ওই ঘটনা ঘটিয়েছে। রায়হান অকপটে ওই রাতের ঘটনার বর্ননা দিয়ে অপর ধর্ষকের পরিচয় প্রকাশ করে। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সুমনকে গ্রেপ্তার করা হয়।
নলছিটি থানার ওসি আবুল খায়ের মা-বাবা ও ভাইকে বেধে রাখার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ছাত্রীকে দেয়া কু প্রস্তাবে সাড়া না পেয়ে ধর্ষন করেছে।