নলছিটিতে অবৈধ কোর্ট ফি,স্ট্যাম্প সহ আটক-৩

নলছিটি প্রতিবেদক ॥ নলছিটি উপজেলার বাসষ্ট্যান্ড এলাকা থেকে অবৈধ কোর্ট ফি ও স্ট্যাম্প বিক্রির দায়ে ৩ জনকে আটক করেছে নলছিটি থানা পুলিশ। গতকাল বুধবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাসষ্ট্যান্ডের বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমান অবৈধ স্ট্যাম্প ও কোর্ট ফি জব্দ করে। এসময় বাদল টেলিকম এর সৈয়দ সুজন(২২),সাকিব ফটোস্ট্যাস্ট এর রাকিব(২০) ও মুক্তিযোদ্ধা ফটোস্ট্যাস্ট এর জাকির হোসেনকে(২৪) আটক করে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,দীর্ঘদিন যাবৎ লাইসেন্স বিহীন ওই সব দোকান গুলোতে অবৈধ ভাবে এসব কোর্ট ফি,স্ট্যাম্প বিক্রি করে আসছিল। বুধবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। পরে তাদের ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করা হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহাম্মাদ আরেফীন আটককৃত প্রত্যেকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা,অনাদায়ে ৩ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। আটককৃত সৈয়দ সুজন উপজেলার সুবিদপুর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে,জাকির হোসেন বিহংগল গ্রামের মকবুল হোসেনের ছেলে,রাকিব বাসস্ট্যান্ড এলাকার গোলাম মোস্তফার (বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কাজী আলমগীরের ভাগিনা) ছেলে। অনুসন্ধানে জানা গেছে, একটি সংঘবদ্ধ চক্র দীর্ঘ দিন যাবৎ জাল স্ট্যাম্প,কোর্ট ফি বিক্রি ও সরবরাহ করে আসছে। আর এসব কোর্ট ফি,স্ট্যাম্প কিছু লাইসেন্স বিহীন দোকানে দেদারছে বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। যার ফলে সরকার লাখ লাখ টাকা রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছিল। বিষয়টি বিভিন্ন সময় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর উপজেলা ভূমি কর্মকর্তা নমিতা দে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার কথা বলা সত্ত্বেও রহস্যজনক কারনে তিনি কোন ব্যবস্থা নেয়নি। যাতে হতাশ হয়েছে ভূক্তভোগীসহ গোটা উপজেলাবাসী। কিন্তু বিষয়টি জানতে পেরে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহন করেন নলছিটি থানার চৌকস পুলিশ কর্তা মাকসুদুর রহমান । তিনি চক্রটি ধরার জন্য গোপন সোর্স লাগিয়ে দেয়। যার ফলে গতকাল পুলিশের একটি দল অবৈধ কোর্ট ফি,স্ট্যাম্প উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। নলছিটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস.এম মাকসুদুর রহমান,এস.আই আতিকুর রহমান,এস.আই ফিরোজ,এ.এস.আই আমিনুল ইসলাম সহ নলছিটি থানায় চৌকস পুলিশের একটি টিম অভিযানে অংশ নেয়। উল্লেখ্য,সম্প্রতি বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় অবৈধ স্ট্যাম্প ও কোর্ট ফি বিক্রির সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পরে অভিযানে নামে পুলিশ।