নগর ভবনে বাজার ও স্টল শাখার তত্ত্বাবধায়কের উপর হামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ আবারো বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের বাজার ও স্টল শাখার তত্ত্বাবধায়কের উপর হামলা চালানো হয়েছে। এবার বিনা মূল্যে স্টল বরাদ্দ না দেয়ায় গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা-কর্মীরা নগর ভবনে গিয়ে তার উপর হামলা করে। নগর ভবনের তৃতীয় তলায় হাট বাজার শাখায় এ ঘটনার সময় সংশ্লিষ্টরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নেয়।
বিসিসি’র হাট বাজার শাখার তত্ত্বাবধায়ক নূরুল ইসলাম জানান, বাংলা বাজারে নব নির্মিত মার্কেটের নিচ তলায় সিড়ির কোঠায় নিজ খরচে অবকাঠাম নির্মান করে সেখানে ব্যবসার জন্য আবেদন করেন ১১ নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছা সেবক লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদার। সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল আবেদনপত্র গ্রহন করে তা হাট বাজার শাখায় পাঠায়। কিন্তু এই বিষয়ে তিনি কোন সিদ্ধান্ত না দেয়ায় পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়নি।
তত্ত্বাবধায়ক নূরুল ইসলাম অভিযোগ করেন, বিনা মূল্যে সিড়ির কোঠা ব্যবহারের অনুমতি না দেয়ায় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আ. রাজ্জাকের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী নগর ভবনের হাট বাজার ও স্টল শাখায় হামলা চালায়। এ সময় তারা তাকে লাঞ্ছিত করে। তখন শাখার অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাকে উদ্ধার করেন।
১১ নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছা সেবক লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক দাবী করে বলেন, বাংলাবাজারে নির্মিত মার্কেটের সিড়ি কোটা ফাকা স্থান রয়েছে। সেখানে তিনি নিজ খরচে অবকাঠামো নির্মান করে ব্যবসার জন্য সিটি মেয়র’র নিকট লিখিত আবেদন করেন। বিনা মূল্যে ব্যবহারের জন্য ২০১৩ সনে সাবেক মেয়র প্রয়াত এমপি শওকত হোসেন হিরন এবং ২০১৪ সালে তার সহধর্মীনি এমপি জেবুন্নেছা আফরোজ ও কাউন্সিলর মজিবর রহমান’র সুপারিশ করেছেন। তার পরেও হাট বাজার শাখার তত্ত্বাবধায়ক নূরুল ইসলাম তার কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা ঘুষ নেয়। কিন্তু তাকে সিড়ি কোঠা বুঝিয়ে না দিয়ে অন্য ব্যক্তির কাছ থেকে উৎকোচ নিয়ে তার মালামাল সিড়ি কোঠা থেকে সরিয়ে ফেলে। আর তাই এই বিষয়টি জানার জন্যই তিনি নগর ভবনে হাট বাজার শাখায় যান। তবে কাউকে তারা লাঞ্ছিত করেননি বলেও দাবী করেন স্বেচ্ছা সেবক লীগের এই নেতা।