নগরীর মোটর সাইকেল চোরাই সিন্ডিকেটের হোতা গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ অবশেষে ধরা পড়লো নগরীর মোটর সাইকেল চোরাই সিন্ডিকেটের হোতা ভদ্রবেশি এসএম আল মাহামুদ প্রিন্স। মোটর সাইকেল চুরির মামলায় গতকাল সোমবার সিটি কর্পোরেশনের নগর ভবনের পেছন থেকে তাকে আটক করে মডেল থানা পুলিশ। আটককৃত মোটর সাইকেল চোরাই সিন্ডিকেটের হোতা প্রিন্স নগরীর ভাটিখানার গাউয়াসার এলাকার কাজী বাড়ি সংলগ্ন মজুমদার মহলের মাহাবুব আলম মজুমদার দুলাল’র ছেলে।
এদিকে প্রিন্সকে আটকের খবরে কোতয়ালী মডেল থানায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ভীড় পড়েছে। বিকাল থেকে একে একে থানায় গিয়ে তার বিরুদ্ধে মোটর সাইকেল চুরি ও অর্থ আত্মসাত সহ বিভিন্ন অভিযোগ দিয়েছেন। তবে প্রিন্স মাহামুদকে আটকের পর গা ঢাকা দিয়েছে সিন্ডিকেটের অন্যান্য সদস্যরা।
সূত্রমতে, হঠাৎ করেই নগরীতে মোটর সাইকেল চুরি বেড়ে গিয়েছিল। রাস্তায় মোটর সাইকেল রেখে কোন ব্যক্তি কাজে গিয়ে ৫ মিনিটের মধ্যে ফিরে এসে খুঁজে পায় না মোটর সাইকেলটি। এমনকি মানুষের ঘরের মধ্যে তালাবদ্ধ করে রাখা গাড়িও লাপাত্তা হয়ে যাচ্ছে। গত প্রায় দুই মাসে এভাবে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে দুই ডজনের বেশি মোটর সাইকেল চুরি হয়েছে। এ ঘটনাগুলোতে বরিশাল মেট্রোপলিটন এলাকার চারটি থানায় মামলা এবং সাধারণ ডায়েরীও করা হয়েছে। তবে এরপরেও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না মোটর সাইকেল চোরাই সিন্ডিকেটকে। অবশেষে একটি মোটর সাইকেল চুরির সূত্র ধরে চোরাই সিন্ডিকেটের এক সদস্যকে আটক করেছে কোতয়ালী মডেল থানার পুলিশের এসআই মামুন।
নগরীর সিটি কর্পোরেশন ভবনের পেছনে পুরাতন মোটর সাইকেল ক্রয়-বিক্রয়কারী বরিশাল মটোর্স এর স্বত্ত্বাধিকারী সুকান্ত জানান, গত শুক্রবার মনির নামের এক ব্যক্তি তার লাল রং এর সিটি হান্ড্রেড মোটর সাইকেলটি আনন্দ স্পোর্সের সামনে রেখে পাশের দোকানে কাজ করছিল। মাত্র দুই মিনিটের ব্যবধানে ফিরে এসে মোটর সাইকেলটি খুঁজে পায়নি তিনি। ঘটনার পর পরই মনির কোতয়ালী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
সুকান্ত আরো জানায়, প্রিন্স দীর্ঘদিন যাবত নগর ভবনের পেছনে মোটর সাইকেলের দোকান গুলোতে আসা যাওয়া করত। বরিশাল মোটর্সের পাশে একটি দোকানে গিয়ে ৫ লাখ টাকায় একটি মোটর সাইকেল কিনতে চেয়েছিল। তবে দেখতে শুনতে ভদ্র হলেও তার চলাফেরা ছিল রহস্যজনক। ঘটনার দিন বিকালে প্রিন্স বরিশাল মোটর্সে এসে সাথে থাকা একটি চাবি দিয়ে দোকানের মোটর সাইকেলের তালা খোলার চেষ্টা করে। শুক্রবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে মনির নামের ব্যক্তি মোটর সাইকেল রেখে যাবার পর পরই উধাও হয়ে যায় প্রিন্স। পরবর্তীতে দেখা যায় মনিরের মোটর সাইকেলটিও নেই। ঘটনার পর থেকে প্রিন্স পালিয়ে ছিল। গতকাল সোমবার পুনরায় নগর ভবনের পেছনে আসলে পুলিশ চার দিক ঘেরাউ করে মোটর সাইকের চোরাই সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা প্রিন্সকে আটক করে পুলিশ।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, প্রিন্স এর নেতৃত্বে নগরীতে ৭ সদস্যের মোটর সাইকেল চোরাই সিন্ডিকেট রয়েছে। এর মধ্যে সিন্ডিকেটের মাস্টার খ্যাত কাউনিয়া মধুমিয়ার পুল এলাকার রাহানকে সম্প্রতি পুলিশ আটক করেছে। তবে এর পরেও মোটর সাইকেল চুরি থেমে ছিলোনা। সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্য চর বাড়িয়া এলাকার অভি সহ বাকি ৬ সদস্য নগরীতে মোটর সাইকেল চুরি অব্যাহত রাখে। তবে সিন্ডিকেটের হোতা প্রিন্সকে আটকের খবরে আত্মগোপনে চলে গেছে সিন্ডিকেটের বাকি ৫ সদস্য। শুধু সিটি হান্ড্রেড চুরি নয়, নগর ভবনের পেছন এবং আশপাশ থেকে ইতোমধ্যে আরো ৫টি মোটর সাইকেল চুরি হয়েছে। যার পেছনে রয়েছে প্রিন্সের হাত। ভদ্রবেশি ভাটিখানার এস.এম আল মাহামুদ প্রিন্স এর বিরুদ্ধে মোটর সাইকেল চুরির ৪/৫টি মামলা রয়েছে বলেও সূত্র নিশ্চিত করেছে।
গোপন সূত্র জানায়, প্রিন্স সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বরিশালের বাইরে থেকে মোটর সাইকেল চুরি করে এনে বিসিসি’র নগর ভবনের পেছনে মিন্টুর পুরাতন মোটর সাইকেল ক্রয়-বিক্রয় এর দোকানে বিক্রি করে। তবে নগরী থেকে চুরি হওয়া মোটর সাইকেল বিক্রির জন্য পাঠিয়ে দেয়া হয় পিরোজপুর এবং খুলনার বর্ডার এলাকায়।
এদিকে নগরীর ভাটারখাল এলাকার পটুয়াখালী মোর্টস ওয়ার্কশপের মালিক প্রিয় লাল চন্দ্র হালদার জসিম জানায়, প্রিন্স তার কাছ থেকে স্টল বরাদ্দ এনে দেয়ার কথা বলে প্রতারণা করে এক লাখ ৩০ হাজার টাকা আত্মসাত করেছে। বিভিন্ন সময় টাকা ফেরত দেয়ার কথা বলে অঙ্গিকার করা সত্ত্বেও সে টাকা ফেরত দেয়নি। এই ঘটনায় তিনি কাউনিয়া থানায় প্রিন্স এর বিরুদ্ধে কাউনিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন। গতকাল প্রিন্সের আটকের সংবাদ পেয়ে কোতয়ালী থানায় ছুটে আসা জসিম এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। শুধু জসিম নয়, গতকাল বিকাল তিনটার পর প্রিন্সকে আটকের খবর পেয়ে তার মাধ্যমে প্রতারণার শিকার বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিদের থানায় এসে ওসির কাছে প্রিন্স এর বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে দেখা গেছে।
এবিষয়ে মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাখাওয়াত হোসেন প্রিন্স এর আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত করা হচ্ছে। প্রমাণ পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তার বিরুদ্ধে মোটর সাইকেল চুরির অভিযোগে মামলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।