নগরীতে বেড়েছে চার্জার ফ্যান বিক্রি

সিদ্দিকুর রহমান॥ জলবায়ু অবস্থার পরিবর্তনের সাথে সাথে রোদের তীব্রতা দিন দিন তাপমাত্রা বেড়েই চলেছে। এতে বৃদ্ধি পেয়েছে গরম। সেই সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে বিদ্যুতের লোডশেডিং। যার কারনে গরমে শিশু থেকে বৃদ্ধ-বৃদ্ধা এমনকি মাঝ বয়সীরাও কষ্ট পায়। কষ্ট থেকে মুক্তি পেতে বৈদ্যুতিক পাখার বাতাসে শরীর জুড়িয়ে নেয়। কিন্তু লোডশেডিংয়ের কারনে বৈদ্যুতিক চার্জ সংরক্ষন করা পাখার চাহিদা বেড়ে গেছে। এই জন্য বিক্রি বেড়েছে বলে জানিয়েছেননগরীর গীর্জ্জা মহল্লায় ইলেকট্রনিক্স পণ্য সামগ্রী বিক্রেতা মেসার্স জাকের রেডি ও এন্ড ওয়াচ হাউজের স্বত্তাধিকারী সুপ্পি। তিনি জানান, চার্জার ফ্যান বিভিন্ন ধরনের হতে পারে। লোডশেডিং পুজি করে বিভিন্ন কোম্পানী ছাড়াও ব্যক্তিগতভাবে বানিজ্যির জন্য ইলেকট্রেশিয়ানরা চার্জার পাখা তৈরি করেছে। সর্বনি¤œ ৮ ইঞ্চি থেকে ১৬ ইঞ্চি পর্যন্ত হয়ে চার্জ দেয়া পাখা রয়েছে। এসব পাখার স্থায়িত্বের মধ্যে পার্থক্য রয়েছে। তাই চার্জ দেয়া বৈদ্যুতিক পাখা ক্রয়ের যাচাইয়ের প্রয়োজন রয়েছে।
দাম সম্পর্কে বলেন, কোম্পানি ভেদে সর্বনি¤œ ৮০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ২ হাজার ২০০ টাকায় বিক্রি হয়। এছাড়াও ব্রান্ডের মধ্যে ওয়ান ব্রান্ডের চার্জার পাখার দাম সর্বনি¤œ ২ হাজার ৩০০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৩ হাজার ৫০০ টাকা, অন্যদিকে ডিফেন্ডার চার্জার পাখার দাম সর্বনি¤œ ২ হাজার ৫০০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৩ হাজার ৮০০ টাকয় বিক্রি হয়। এই সব পাখার সাথে এলইডি বাল্ব যুক্ত থাকে। এসব পাখায় সর্বোচ্চ ২-৩ ঘন্টা পর্যন্ত বাতাস দিতে সক্ষম। তবে ফিট, লুসাই, সনেকা, সনি ব্রান্ডের পাখায় সর্বোচ্চ ৫ ঘন্টা বাতাস দিয়ে থাকে।
নগরীর গীর্জ্জা মহল্লায় মেসার্স এএলওয়াচ ইলেকট্রনিক্স, শুকরিয়া ইলেকট্রনিক্স নামের দোকানগুলো ঘুরে দেখা গেছে একই চিত্র। দোকানগুলোর স্বত্তাধিকারীরা জানান, চার্জার ফ্যানের সরবরাহ বৃদ্ধি পাওয়ায় ও ক্রেতা সমাগম কম থাকায় সীমিত লাভে বিক্রি করতে হচ্ছে। অন্যদিকে কাটপট্টি রোডের বিভিন্ন চার্জার পাখার বিক্রয় প্রতিষ্ঠান সমূহ ঘুরে দেখা গেছে স্থান পরিবর্তনের সাথে সাথে চার্জার পাখার ক্রেতা ও দামের পার্থক্য রয়েছে। নগরীর অন্যান্য মার্কেট থেকে এখানে দোকান বেশি হওয়ায় ক্রেতার সমাগম বেশি। পল্লী বিদ্যুতের অনুমোদিত ডিলার মেসার্স রানা ট্রেডিং মার্ট থেকে জানা যায়, প্রতিযোগিতার বাজারে সীমিত লাভে চার্জার পাখা বিক্রয় করতে হচ্ছে। এ সময় তিনি দুটি ব্রান্ডের চার্জার পাখার দাম তুলে ধরেন। ড্যালোডি ফ্যান ১২-১৬ ইঞ্চি পর্যন্ত হয়ে থাকে যার বাজার মূল্য ২ হাজার ৫০০ থেকে ৩ হাজার ২০০ টাকা হয়ে থাকে। এছাড়াও সনিকা ব্রান্ডের ১২-১৬ ইঞ্চি চার্জার ফ্যানের বাজার মূল্য ৩ হাজার ২০০ থেকে ৩ হাজার ৮০০ টাকা।
এদিকে গরমে অতিষ্ঠ হয়ে সেলিম আহম্মেদ নামে ক্রেতা অভিযোগ করে বলেন, চার্জার পাখা নকলে সয়লাব হয়ে আছে। যার ফলে সতর্ক অবস্থানে থেকে ক্রয় করতে হচ্ছে। আর ক্রেতার চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় ব্যবসায়ীরা প্রচুর দাম হাকাচ্ছেন। যার ফলে দরদাম করে কিনতে হচ্ছে।