নগরীতে দারোগার বাড়ি থেকে গাঁজাসহ আটক-২

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ পুলিশের আলিশান বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ীদের আস্তানায় অভিযান চালিয়েছে মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। এসময় বাড়ির ভাড়াটিয়া বাসা থেক ৩ কেজি গাঁজা সহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে নগরীর শাহ পড়ান সড়কের মাহমুদা মঞ্জিলে ডিবি’র এসআই দেলোয়ার হোসেন-পিপিএম’র নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়। মাদক ব্যবসায়ীদের আস্তানা গড়ে ওঠা বাড়িটির মালিক ঝালকাঠি জেলা পুলিশে কর্মরত এটিএসআই আব্দুল আজিজ’র।
এদিকে অভিযোগ উঠেছে দীর্ঘ দিন ধরেই এটিএসআই আব্দুল আজিজ’র বাড়ি ভাড়া নিয়ে আস্তানা তৈরির পর মাদক ব্যবসা করে চক্রটি। বিষয়টি এটিএসআই আব্দুল আজিজ অবগত থাকার পরেও রহস্যনজক কারনে নিরব ছিলেন। এমনকি মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ তার বাড়িতে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা কালে তাদের সাথে খারাপ ব্যবহার, এমনকি বাড়িতে প্রবেশে বাঁধা দেয় এটিএসআই আব্দুল আজিজ। আর তাই মাদক ব্যবসার সাথে তার সম্পৃক্ততার সন্দেহেরও সৃষ্টি হয়েছে।
এছাড়া আটককৃত মাদক ব্যবসায়ীরা হলো- মাদারীপুরের কালকিনি’র দক্ষিণ রাজদী এলাকার বাসিন্দা আল আমিন ও চাঁদপুরের কচুয়া থানাধীন ডুমুরীয়া এলাকার বাসিন্দা আলমগীর হোসেন।
অভিযানের নেতৃত্ব দেয়া মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের উপ-পরিদর্শক দেলোয়ার হোসেন-পিপিএম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন হযরত শাহ পরান সড়কে এটিএসআই আব্দুল আজিজ আর মালিকানাধীন বাড়িতে ভাড়াটিয়া চক্র মাদকের আস্তানা গড়েছে। বিভিন্ন স্থান থেকে মাদক এনে তা নগরীর বিভিন্ন জনপদে বিক্রি করে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে ডিবি’র দল ওই বাড়িতে অভিযান চালায়। এসময় চারতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলার পাশ্চিম পাশের ভাড়াটিয়া ঘর থেকে ৩ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেন। একই সাথে মাদক ব্যবসায়ীদ্বয়কে আটক করা হয়। এই ঘটনায় ডিবি পুলিশ বাদী হয়ে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এদিকে বাড়ির মালিক আইন শঙ্খলা রক্ষকারী বাহিনীর একজন সদস্য হলেও মাদক বিরোধী অভিযানে তার সহযোগিতা পাননি বলে দাবী এসআই দেলোয়ারের। তার অভিযোগ সহযোগিতার পরিবর্তে তিনি এবং তার পরিবার অসৌজন্যমুলক আচরন করেছে। তার বাড়িতে প্রবেশে বাঁধা সৃষ্টি করেছেন পুলিশের এই সদস্য। তাছাড়া একজন পুলিশ কর্মকর্তার বাড়িতে ভাড়া থেকে দীর্ঘ দিন ধরে ভাড়াটিয়ার মাদক ব্যবসা পরিচালনার বিষয়টি সাধারন মহলে আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। ভাড়াটিয়াদের সম্পর্কে কোন তথ্য না জেনেই পুলিশের ওই এটিএসআই নিজ ঘরে মাদক ব্যবসার সহযোগিতা করে আসছিলো বলে অভিযোগ এলাকাবাসির। পাশাপাশি একজন এটিএসআই হয়েও আব্দুল আজিজ এর বিশাল অট্টালিকার মালিক এবং সম্পদশিল হওয়ার বিষয়টিও বেশ সন্দেহের সৃষ্টি করেছে। এসব কারনে পুলিশের এটিএসআই আব্দুল আজিজ মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত কিনা তা নিয়েও সন্দেহের অবকাশ নেই।