নগরীতে ছিনতাইকারি ও মলম পার্টির উপদ্রব শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ঈদ ও পূজাকে সামনে রেখে নগরীতে ছিনতাইকারি ও মলম পার্টির উপদ্রব শুরু হয়েছে। বর্তমানে নগরীতে  ছিনতাই ও অজ্ঞান পার্টির খপ্পড়ে পড়েছে পথচারীরা।
নগরীর গীর্জা মহল্লার চশমা বিক্রেতা আরিফ জানান, বুধবার সকাল ১১ টায় দোকানের  পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন নারী পথচারী রাশিদা বেগম। মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা থেকে আসা এই নারী ব্যাগে ৭ হাজার ৬০০ টাকা নিয়ে নগরীতে ঈদের কেনাকাটা করতে আসেন। কিন্তু ছিনতাইকারী তা কেনাকাটা তো করতে দেয়নি। বাড়ি ফেরার টাকা তাকে ধার করতে হয়েছে।
দোকানী বলেন, নারী তার দোকান অতিক্রমকালে এক ছিনতাইকারী ছো মেরে ব্যাগ দিলো দৌড়। আকস্মিক এই কান্ডে হতভম্ব নারী কিছু বুঝে উঠার পূর্বে ছিনতাইকারী হাওয়া।
আরিফ বলেন, এই ঘটনা বর্তমানে বেড়েছে। যখন পুলিশ থাকে না। ছিনতাইকারী সেই সময়ের সুযোগ নিয়ে থাকে।
নারীর উদ্ধৃতিতে আরিফ বলেন, টাকা ছাড়াও ব্যাগে তার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছিলো।
বৃহস্পতিবার নতুন বাজারের যানজটে আটকে থাকা অটোরিক্সা যাত্রী বাবুগঞ্জের তাসলিমা বেগমের গলা থেকে ছিনতাইকারী স্বর্নের চেইন নিয়ে পালানোর সময় জনতার হাতে ধরা পড়ে। মাদকসেবী ছিনতাইকারী ফরহাদকে উত্তম মাধ্যম দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।
গতকাল শুক্রবার সকালে  নগরীর নথুল্লাহবাদ এলাকায় ঢাকা থেকে আসা মা ও মেয়েকে চেতনা নাশক দ্রব্য সেবন করিয়ে ব্যাগ ও নগদ ৪ হাজার টাকা নিয়েছে অজ্ঞান পার্টি। গৌরনদীর বাসিন্দা  মা আছিয়া বেগম ও মেয়ে নুপুরকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  জ্ঞান ফিরে এলে মেয়ে নুপুর জানান, গাড়ীর জন্য অপেক্ষা করছিলো তারা। এই সময় এক লোক এসে মাকে ৪ টি কলা দিয়েছে। আমরা কলা খেতে না খেতেই ঘুমিয়ে পড়ি আর কিছু মনে নেই।