নগরীতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দখিনা আমের মেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নিরাপদ আমের ব্যাপারে জনসচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি টেকসই বাজার সংযোগ সৃষ্টি করতে এই প্রথমবারের মত নগরীতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দখিনা আমের মেলা। আগামী ১০ ও ১১ জুন নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে বাংলাদেশ মডেল ইয়ূথ পার্লামেন্টের আয়োজনে এবং দুটি আন্তজার্তিক সংস্থার সহযোগীতায় এই মেলা অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে মেলা উপলক্ষ্যে গতকাল শুক্রবার নগরীর হোটেল গ্রান্ড পার্কে এক সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। সিডিসিএস এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দা ফারজানা মোর্শেদের সভাপতিত্বে সংলাপে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক ড.গাজী মো: সাইফুজ্জামান। এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কৃষি সম্পসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তুষার কান্তি সমাদ্দার, সিএসআইডির কো-অর্ডিনেটর শেখ মোর্শেদ জাহান, বরিশাল প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী নাসির উদ্দিন বাবুল, ইউনিসেফ বরিশাল বিভাগীয় প্রধান এএইচ তৌফিক আহমেদ, বরিশাল বিশ^বিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের চেয়ারম্যান তানভীর কায়সার। এদিকে সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তব্য জেলা প্রশাসক ড.গাজী মো: সাইফুজ্জামান বলেন, আম একটি সম্ভাবনাময় ফল, এটি বাংলাদেশে পর্যাপ্ত পরিমানে উৎপন্ন হয়। আমের মৌসুম শুরু হওয়া থেকেই আমরা আমকে বিষমুক্ত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছি। দক্ষিনাঞ্চলের আমকে ব্যবসায়ীকভাবে কাজে লাগাতে হবে। এসময় তিনি আরো বলেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে যেন এটি আরো প্রসার লাভ করে এটাই আমাদের কাম্য। আমাদের শিশুদের জন্য প্রয়োজন পুষ্টিকর খাদ্য এজন্য আমাদের নিরাপদ আম নিশ্চিত করতে হবে। এদিকে সংলাপে অন্যান্য বক্তারা বলেন, বাণিজ্যিকভাবে আম চাষের জন্য বড় পরিসরের জমি পাওয়া কষ্টকর। আমচাষের ক্ষেত্রে উদ্যোক্তাদের আগ্রহের অভাব রয়েছে। আশার কথা ছোট পরিসরে আমের আবাদ বাড়ছে। সংলাপে আম ব্যাবসায়ীরা ন্যয্যমূল্যের দাম পেতে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা ও মধ্যস্বতভোগীদের দৌরাত্বের কথা তুলে ধরেন। দখিনা আমের মেলায় সাতক্ষীরা, যশোর, ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ইত্যাদি জেলা থেকে আগত সিডিএসের আম চাষী ও ব্যবসায়ীবৃন্দ অংশ নেবেন। এ মেলা চলবে সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত । ব্যতিক্রমী এ আয়োজনে আরো থাকছে শিশুদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, কৃষক আড্ডা, এবং স্কুল, কলেজ ও বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহনে বির্তক প্রতিযোগিতা। মেলাটি সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত। আর এ মেলার মাধ্যমে ক্রেতাদের পাশাপাশি লাভবান হবেন নিরাপদ আম সরবহকারী ব্যবসায়ীরাও।