নগরীতে অটোমেকানিক্স’র গলায় ফাঁস দেয়া লাশ উদ্ধার ॥ শিশু পুত্র সহ স্ত্রী লাপাত্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীর নথুল্লাবাদ লুৎফর রহমান সড়কের ভাড়া বাসা থেকে অটো রিক্সার মেকানিকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে অটোচালকের স্ত্রী’র সন্ধান পায়নি। এদিকে লাশ উদ্ধারের পর থেকে আড়াই বছরের পুত্র সহ স্ত্রী কমলা বেগমকে আত্মগোপনে থাকায় কাওসারের মৃত্যুর কারন নিয়ে নানা প্রশ্ন’র সৃষ্টি হয়েছে।
গতকাল সোমবার সকালে অটো চালক মো. কাওসার হোসেন’র (২৯) লাশ উদ্ধার করা হয়। সে সদর উপজেলার রায়পাশা-কড়াপুর ইউনিয়নের বৌশের হাট এলাকার মো. আবুল কাসেমের ছেলে।
তারা জানায়, ভোর রাত ৫টার দিকে ডাকাডাকির শব্দ পেয়ে তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। গিয়ে দেখতে পান কাওসার হোসেন এর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি দরজার কাছে পড়ে ছিল। এছাড়া কাওসার গলায় টাওয়াল দিয়ে পেচানো অবস্থায় ফ্যানের সাথে ঝুলে আছে। তবে হাটু ভাজ করা অবস্থায় পা নিচে লাগানো ছিলো।
মহানগর পুলিশের এয়ারপোর্ট থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুর রহমান মুকুল জানান, অটো চালক কাওসার লুৎফর রহমান সড়কের নজরুল ইসলামের বাসায় স্ত্রী পুত্র ও কন্যাকে নিয়ে ভাড়া থাকতো। বাসার ফ্যানের সাথে টাওয়াল দিয়ে গলায় ফাঁস দেয়া ঝুলন্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করা হয়েছে।
ওসি (তদন্ত) আব্দুর রহমান মুকুল আরো বলেন, লাশ উদ্ধারের সময় কাওসারের ঘরে ৬ বছর বয়সি কণ্যাকে পাওয়া গেছে। কিন্তু তার স্ত্রী কমলা বেগম এবং আড়াই বছরের পুত্র রাফসান এর খোঁজ পাওয়া যায়নি। ঘটনার আগের রাত ১২টার পরেও দুই স্বামী-স্ত্রীকে ঘরে দেখেছেন বাসিন্দারা।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে তিনি আরো বলেন, ঘরের প্রবেশ দারের প্রধান ফটক আটকানো অবস্থায় ছিলো। স্ত্রী ঘরের বাইরে যেতে হলে পেছনের ওয়াল টপকে যেতে হয়েছে। কাওসারের মৃত্যুর সাথে অন্য কোন কারন থাকতে পারে। তাই বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তাছাড়া ঘটনার রহস্য বের করতে হলে এই মুহুর্তে কাওসারের নিখোঁজ থাকা স্ত্রীকে প্রয়োজন। তাকেও খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।
অপরদিকে স্থানীয় কয়েকটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, অটোমেকানিক্স কাওসার ৭ থেকে ৮ বছর যাবত লুৎফর রহমান সড়কের ওই বাড়িতে ভাড়া থেকে আসছে। তার স্ত্রী কমলার ইতিপূর্বে একটি বিয়ে হয়েছিলো। সেই স্বামীকে রেখে কাওসারের সাথে দ্বিতীয় বিয়ে হয় কমলার। সম্প্রতি পূর্বের সেই স্বামীর সাথে তার যোগাযোগ শুরু হয়। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কলহ চলে আসছিলো। পরকিয়া প্রেমের জের ধরেও কাওসারের মৃত্যুর হতে পারে বলে ধারনা করছে এলাকাবাসী।