নগরভবনের দুই আরআই সাময়িক বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের পর বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তিকারী বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের দুই সড়ক পরিদর্শক (আরআই) কে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। সেই সাথে কটুক্তির প্রতিবাদকারী আরো এক আরআইকে পদাবনতী দেয়া ছাড়াও তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার দাস এই আদেশ দেন।
বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি করে বরখাস্ত হওয়া আরআইরা হলেন সংশ্লিষ্ট শাখার উচ্চমান সহকারী কাম জ্যেষ্ঠ আরআই জাহাঙ্গীর হোসেন এবং আরআই সাজ্জাদ হোসেন। এছাড়া আরআই রেজাউল কবিরকে পদাবনতী দিয়ে কর আদায় শাখায় দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।
বিসিসি’র একাধিক সূত্র জানায়, গত সোমবার দুপুরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র পদক পাওয়া নিয়ে বিসিসি’র আরআই শাখায় আরআইদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এসময় বিএনপি সমর্থীত আরআই জাহাঙ্গীর কবির এবং সাজ্জাদ হোসেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে অশালিন মন্তব্য এবং কটুক্তি করে। এসময় আওয়ামী লীগ সমর্থীত অপর জ্যেষ্ঠ আরআই রেজাউল কবির এর প্রতিবাদ করলে দুই পক্ষের মধ্যে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে হাতাহাতি ও মারামারির সৃষ্টি হয়।
এদিকে বঙ্গবন্ধুকে কটুক্তি’র বিষয়ে গতকাল দৈনিক আজকের পরিবর্তনে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে টনক নড়ে যায় বিসিসি কর্তৃপক্ষের। সেই সাথে নগর ভবনে গতকাল দিন ভর বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়।
এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রকাশিত সংবাদের জের ধরে গতকাল মঙ্গলবার বিসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক আদেশে বিএনপি সমর্থীত আরআই কাম উচ্চমান সহকারী জাহাঙ্গীর হোসেন এবং সাজ্জাদ হোসেনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়। অপর এক আদেশে আ’লীগ সমর্থীত আরআই রেজাউল কবিরকে আরআই শাখা থেকে সরিয়ে পদাবনতী দিয়ে কর আদায় শাখা নিযুক্ত করা হয়েছে।
এ ঘটনার সত্যতা শিকার করে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রনজিৎ কুমার দাস বলেন, সাময়িক বরখাস্ত এবং পদাবনতী ছাড়াও ঘটনাটির সুষ্ঠু তদন্তের জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছেন। এ কমিটির প্রধান করা হয়েছে বিসিসি’র সচিব খন্দকার আনোয়ার হোসেনকে। আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।