নকলে বাঁধাদানকারী শিক্ষকের মাথা থেতলে দেয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীর অভিভাবকসহ আটক ৩

বানারীপাড়া প্রতিবেদক ॥ এসএসসি পরীক্ষায় নকল করতে বাধা দেয়া কক্ষ পরিদর্শক শিক্ষকের মাথা ইট দিয়ে থেতলে দেয়ায় পরীক্ষার্থীর বাবাসহ তিনজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে। গতকাল রোববার পরীক্ষা শেষে বানারীপাড়া উপজেলার চৌয়ারীপাড়া হাসিনা মোর্শেদ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ওই ঘটনা ঘটে। আহত ওই বিদ্যালয়ের গনিতের শিক্ষক হরিচাঁদ মন্ডলকে গুরুতর আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাহিনা বেগম জানান, বানারীপাড়া ডিগ্রী কলেজ কেন্দ্রে বানারীপাড়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থী শান্তা নকল করে। বিষয়টি টের পেয়ে কক্ষ পরিদর্শক শিক্ষক হরিচাঁদ মন্ডল তাকে নকল করা থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়। পরীক্ষা শেষে বিষয়টি অভিভাবকদের কাছে নালিশ দেয়।
ছাত্রীর বাবা বানারীপাড়া পৌরসভার কর্মচারী হুমায়ুন কবির শরীফ, মামা কামাল ও স্বজন নাঈম ওরফে সাদ্দাম দুপুরে বিদ্যালয়ে গিয়ে শিক্ষক হরি চাঁদ মন্ডলকে বেধড়ক মারধর করে। এক পর্যায়ে ইট দিয়ে মাথা থেতলে দেয়। তাকে রক্ষায় এগিয়ে যাওয়া শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদেরও লাঞ্ছিত করা হয়।
তখন অন্য শিক্ষকরা এসে তিনজনকে আটকে পুলিশে দেয়।
প্রধান শিক্ষক সাহিনা বেগম আরো জানান, হামলাকারীদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র ও শিক্ষা মন্ত্রনালয়, বরিশাল শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যান, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। এব্যাপারে থানায় মামলা করা হবে বলে জানান তিনি।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বানারীপাড়া থানার ওসি জিয়াউল আহসান বলেন, এই ঘটনায় মামলা হবে।
তবে হামলাকারী পরীক্ষার্থীর বাবা হুমায়ুন কবির শরীফ দাবি করেন, কক্ষ পরিদর্শক শিক্ষক তার কন্যার মোবাইল নম্বর চাওয়াসহ যৌন হয়রানী এবং নকল দিয়ে বহিস্কার করার হুমকি দিয়েছে। পরীক্ষা শেষে বিষয়টি জেনে বিদ্যালয়ে গিয়ে জানতে চাইলে শিক্ষক দুর্ব্যবহার করেন।