ধর্ষকের মুক্তি ৩০ হাজার টাকা

উজিরপুর প্রতিবেদক॥ উজিরপুরে ধর্ষিত স্কুল শিক্ষার্থীকে ৩০ হাজার টাকা দিয়ে মীমাংশা করেছে সালিশদাররা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার উপজেলার শোলক ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটেছে।
স্থানীয়রা জানিয়েছে, সোনামদ্দি সিকদারের ছেলে কাওছার সিকদার (২০) একই এলাকার ৮ম শ্রেনীতে পড়–য়া ছাত্রীর সাথে ৪ মাস ধরে প্রেম করে। গত বৃহস্পতিবার বিয়ের প্রলোভনে বাড়ি থেকে নিয়ে বখাটে কাওসার ধর্ষন করে বলে ছাত্রী জানিয়েছেন। তখন স্থানীয়ার তাদের আটক করে ইউপি সদস্য জামালের কাছে হস্তান্তর করে। এ ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে ইউপি সদস্য জামাল, জাহাঙ্গীর, সাবেক ইউপি সদস্য সেলিম, জাকির চৌকদার, দীলিপ দাস সহ স্থানীয়রা শালিশ করে। তারা স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষনের জন্য ধর্ষক কাওসারকে মূল্য ৩০ হাজার টাকা ধার্য করে মিমাংসা করে দেয়। ধর্ষিতা ছাত্রীর মা জানান, আমরা গরীব , আমাগো কোন লোক নাই তাই চাপে পইরা কিছু কইতে পারি নাই। মোর মাইয়ায় এহন পর্যন্ত কোন কিছু খাইতে পারে নাই। শুধু ছেলাইন দিতেছি। মুই এহন কি করমু আমেরে কন।
ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর জানান, সত্য মিথ্যা ওই ছেমরি জানে। বিয়ের বয়স হয় নাই হেইয়ার লইগ্যা ৩০ হাজার টাকা দিয়ে ইউপি সদস্য জামাল, সেলিম, জাকির চৌকদার ও দীলিপ দাস মিমাংসা করে দেছে বলে শুনেছি। সাংবাদিকগো লইগা ৫ হাজার টাকার রাখছে হুনছি তবে ২ হাজার টাকা দেছে কারে যেন। এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য জামালকে ফোন করলে তিনি অসুস্থতার কথা বলে ফোন কেটে দেন। ওসি মো: নুরুল ইসলাম জানান, ব্যপারটি শুনেছি তবে এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।