দুমকিতে সাবেক সেনা সদস্যকে জবাই করে হত্যা

দুমকি সংবাদদাতা ॥ দুমকিতে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সেনাবাহিনীর মেডিকেল কোরের এক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে গলা কেটে জবাই করে নির্মমভাবে হত্যা করেছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। রবিবার গভীর রাতে উপজেলার লেবুখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ কার্তিকপাশা গ্রামে এ নৃশংস হত্যাকান্ড ঘটে। সোমবার সকালে বাড়ীর পার্শ্ববর্তী মুগডালের ক্ষেত থেকে অব. সেনা সদস্যের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, রবিবার আনুমানিক রাত ৯টার দিকে কে বা কারা মোবাইল ফোনে কল দিয়ে অব. সেনা সদস্য মোঃ জামাল হোসেন (৪৯) কে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে নৃশংসভাবে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে হত্যা করে। এরপর আর সে বাসায় ফেরেনি। পরদিন সোমবার সকালে তার বাসা থেকে ২ শ’ গজ দূরে মুগ ডালের ক্ষেতে লাশ দেখতে পায় মুগডাল তুলতে আসা এক নারী প্রতিবেশী। সে তাৎক্ষনিকভাবে দৌড়ে জামালের বাসায় খবর দিলে মুহুর্তেই এ খবর ছড়িয়ে পড়লে সকাল ৮টায় পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার সৈয়দ মোসফিকুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এইচএম আজিম-উল হক, পটুয়াখালী সদর সার্কেল এএসপি সাহেব আলী পাঠান, থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ হাবিবুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনাস্থল থেকে মোবাইলসহ কিছু আলামত জব্দ করা হয়েছে। এছাড়াও ঘটনাস্থলে পুলিশ, র‌্যাবের পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক গণমাধ্যমকর্মী সেখানে হাজির হন। সকাল থেকেই শোকে মুহ্যমান হয়ে পড়েন জামালের স্ত্রী, ৩ কন্যা সন্তানসহ অন্যান্য অত্মীয়-স্বজনরা। স্ত্রীর কান্নায় সেখানে শোকাবহ পরিবেশের সৃষ্টি হয়। দুমকি থানার অফিসার ইনজার্চ মোঃ হাবিবুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সাংবাদিকদের জানান, সোমবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। অপরাধীদের ধরতে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। হত্যাকান্ড সম্পর্কে তিনি বলেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে। স্থানীয় এলাকাবাসীরও একই ধারনা। উল্লেখ্য, অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য মোঃ জামাল হোসেন উপজেলার লেবুখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ কার্তিকপাশা গ্রামের মরহুম আবুল হোসেন সিকদারের পুত্র। তাঁর স্ত্রী ফেরদৌসি আক্তার সাতানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসেবে চাকুরী করছেন। ব্যক্তিজীবনে মারিয়া, ইসরাত ও সাদিয়া নামের ৩ কন্যা সন্তান রয়েছে।