দক্ষিণাঞ্চলের পেশাদার সাংবাদিকতার পথিকৃৎ ছিলেন মাইনুল হাসান

নিজস্ব প্রতিব্দেক॥ সাংবাদিক মাইনুল হাসান স্মৃতি পদক পেলেন সাংবাদিক মিন্টু বসু। গতকাল শনিবার রাত সাড়ে ৭টায় নগরীর শব্দাবলী মিলনায়তনে মাইনুল হাসানের ১১ তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পদক প্রদান ও স্মরনানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় তাকে সম্মাননা স্বরূপ ক্রেষ্ট ও ১০ হাজার টাকার চেক দেয়া হয়। সাংবাদিক মাইনুল হাসান স্মৃতি সংসদের আয়োজনে অনুষ্ঠানে নাট্যজন সৈয়দ দুলালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাদামনের মানুষ সমাজসেবী বিজয় কৃষ্ণ দে। স্মরণানুষ্ঠানে বক্তব্য দেয় পেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মানবেন্দ্র বটব্যাল, এসএম ইকবাল, নুরুল আলম ফরিদ, নজরুল ইসলাম চুন্নু, ব্রজমোহন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক স.ম ইমানুল হাকিম, এ্যাডঃ হিরন কুমার দাস মিঠু, মুরাদ আহম্মেদ, প্রেসক্লাব সাধারন সম্পাদক পুলক চ্যাটার্জী, যুগ্ম সম্পাদক কাজী মিরাজ মাহমুদ, আজমল হোসেন লাবু, সাংস্কৃতিক সংগঠন সমন্বয় পরিষদের সভাপতি শান্তিদাস প্রমুখ। এ সময় বক্তারা বলেন, আধুনিক সাংবাদিকতার কারিগর ছিলেন মাইনুল হাসান। তার আদর্শ ও লেখনির মধ্য দিয়ে সাংবাদিকতায় যে ধারা রেখে গেছেন সেই ধারাকে অব্যাহত রাখা আমাদের একান্ত কর্তব্য। তিনি দক্ষিণাঞ্চলের পেশাদার সাংবাদিকতার পথিকৃত ছিলেন। শুধু পেশাদারিত্বে নয়, সাংবাদিক সমাজে তার অবস্থান ছিল অভিভাবক সম। নিরন্তর সংবাদ সংগ্রহের পাশাপাশি সাংবাদিক সংগঠন ও শিশু সংগঠন গড়ে তোলায় উদ্যোগি ভূমিকা পালন করে ছিলেন। স্মরনানুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুকুল দাস, বীরেন সমদ্দার, দাশগুপ্ত আশীষ কুমার, কাজল ঘোষ, স্বপন খন্দকার, বিএম কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক এসএম কাইয়ুম উদ্দিন, কাউন্সিলর মোঃ জাকির হোসেন, সাইফুর রহমান মিরন, বেলায়েত বাবলু, শিক্ষিকা পাপিয়া জেসমিন, এনজিও কর্মী শুভংকর চক্রবর্তী প্রমুখ।