তাহলে কী এবারও পার পেতে যাচ্ছে বহুল অপকর্মের হোতা সেই সুবল মূখার্জী!

শাকিল মাহমুদ বাচ্চু উজিরপুর॥ বরিশাল প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক পুলক চ্যাটার্জি হত্যা প্রচেষ্টা মামলার প্রধান সন্দেহভাজন বাবুগঞ্জের চিহ্নিত ভুমিদস্যূ, মামলাবাজ ও সন্ত্রাসের গডফাদার সুবল মুখার্জী আসামী তাহলে কী এবারও পার পেতে যাচ্ছে ! এ প্রশ্ন এখন হাজারো মানুষের। পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া চিহ্নিত এ গডফাদারকে মামলা থেকে রক্ষা করার জন্য মোটা অংকের মিশন নিয়ে মাঠে নেমেছে তার সহযোগীরা। তাকে বাঁচানোর জন্য নানা তৎপরতা শুরু করেছেন। সরেজমিনে বাবুগঞ্জের রহমতপুরে গিয়ে জানা গেছে নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য। সুবল মুখার্জী পশ্চিম রহমতপুর গ্রামের রামসদয় মুখার্জীর ছেলে। বরিশাল শহরেও রয়েছে তার একটি বাড়ি। সে রহমতপুর সহ বিভিন্ন এলাকায় প্রশাসনের চোখে ধুলো দিয়ে দাপটের সাথে নানা অপকর্ম করে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছেন। তার হাত থেকে আপন ভাইরাও রক্ষা পায়নি। তাদের জমি নিজে হাতিয়ে নিয়ে তাদেরকে দেশ ছাড়া করেছেন। দেশ থেকে বিতাড়িত হওয়ার আগে ভাইয়েরা সুবলের বিরুদ্ধে আদালতে জমির জন্য মামলা দায়ের করেছিল। ২০০৯সালে পশ্চিম রহমতপুর এলাকায় সরকারী ভিপি সম্পত্তি দখলকে কেন্দ্র করে একটি হত্যাকান্ডের ঘটনার মূল হোতা সুবল মুখার্জী। ওই এলাকার দরিদ্র ছালামের পুত্র শহিদুলকে হত্যা করে। ২০১১সালে নদী ভাঙ্গনী হোসেন হাওলাদারের খাস জমি দখল করে নেয় ভূমি দস্যূ সুবল। সাম্প্রতিক সময়ে সে আপন বড় ভাই বাসুদেব মুখার্জীকে নিজ দোকান থেকে টেনে হেচড়ে বের করে দেয়। এর প্রতিবাদ করায় ভাইর ছেলে সজীবকে প্রকাশ্যে পিটিয়ে জখম করে সুবল বাহিনী। তার নির্যাতনের স্বীকার হামেদের পরিবার ও হোসেন টেইলার এখন প্রায় নিঃস্ব। হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষও রক্ষা পায়নি তার হাত থেকে। তাদের জমি দখল করে মামলায় ফাসিয়ে নিঃস্ব করে দিয়েছে সুবল। রহমতপুরের কানাই দত্ত ও খোকন দত্তর পরিবারকে পথে বসিয়েছেন তাদের সম্পত্তি দখল করে নিয়ে উল্টো তাদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলা সহ হত্যা মামলায় ফাসানোর মূল নায়ক সুবল। তার বিরুদ্ধে শতশত অভিযোগ থাকলেও টাকার বিনিময়ে সে সবকিছু থেকে পার পেয়ে তার বিরুদ্ধে অবস্থান কারীদের বিভিন্নভাবে মামলা হামলা করে নিঃস্ব করার কৌশল অবলম্বন করেন। এলাকাবাসী একাধিকবার তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন মিছিল করেছিল। সর্বশেষ বরিশাল পুলিশের হাতে গ্রেফতার হওয়া সুবল মুখার্জীর বিচারের দাবীতে গত ২ আগষ্ট রহমতপুরে মানববন্ধন কর্মসূচীতে উপস্থিত শত শত নারী পুরুষ বিক্ষোভ মিছিল করে। পশ্চিম রহমতপুর এলাকাকার স্থায়ী বাসিন্দা কেতাব আলী খানের পরিবারটিকে হামলা মামলা করে নিঃস্ব করে দিয়েছে সুবল। নির্যাতনের স্বীকার রহমতপুর এলাকার হোসেন টেইলার জানিয়েছেন সুবলের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড এরশাদ সিকদারকেও হার মানিয়েছে। সে নানা অপকর্ম করে টাকার বিনিময়ে পার পেয়ে যায়। আমরা তার বিচারের দাবী জানাচ্ছি। এদিকে সুবলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন রহমতপুর এলাকার শতশত অসহায় নারী পুরুষ। উল্লেখ্য গত ১৮ই আগষ্ট দিবাগত রাত ১টায় পুলক চ্যাটার্জিকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় পুলিশ সুবল মুখার্জীকে বরিশাল থেকে আটক করে।