ঢাকা-বরিশালসহ ৫ রুটের ফ্লাইট উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বিডিনিউজ ॥ চার বছর পর নতুন উড়োজাহাজ দিয়ে বিমানের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী সংস্থাটিতে সময়সূচি ধরে চলতে বলেছেন। ফ্লাইট সূচি ধরে রাখতে মাঝে-মধ্যেই হিমশিম খাওয়া বিমানের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “বিমান নির্দিষ্ট সময়ে পৌঁছাবে, নির্দিষ্ট সময়ে আসবে; তা নিশ্চিত করতে পারলে সুনাম বৃদ্ধি পাবে।” গতকাল রোববার শাহজালাল বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টার্মিনালে বিমানের অভ্যন্তরীণ রুট এবং সংস্থার বহরে সংযোজিত দুটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ উদ্বোধন করেন। কানাডার তৈরি ৭৪ আসনের ড্যাশ-৮-কিউ-৪০০ মডেলের উড়োজাহাজ দুটির নাম প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন মেঘদূত ও ময়ূরপঙ্খী। আগামী ৬ এপ্রিল থেকে কক্সবাজার, যশোর, রাজশাহী, সৈয়দপুর ও বরিশালে পথে উড়বে নতুন এই দুটি উড়োজাহাজ। প্রধানমন্ত্রী বিমানের যাত্রী সেবা নিশ্চিতের পাশাপাশি দক্ষতা বাড়ানোর তাগিদও দেন।
উড়োজাহাজের অভাবে কয়েক বছর ধরে বিমানের অভ্যন্তরীণ রুটগুলো বন্ধ। সর্বশেষ ২০১১ সালে ঢাকা-কক্সবাজার রুটে বিমানের ফ্লাইট বন্ধ করে দেওয়া হয়।
দুটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ দিয়ে প্রতি সপ্তাহে কক্সবাজারে ছয়টি, যশোরে পাঁচটি, রাজশাহী ও সৈয়দপুরে তিনটি এবং বরিশালে দুটি করে ফ্লাইট চালানো হবে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এর মধ্য দিয়ে চট্টগ্রাম ও সিলেটসহ রাজশাহী, যশোর, বরিশাল, সৈয়দপুর এবং কক্সবাজারের জনগণের দীর্ঘদিনের আকাঙ্ক্ষার বাস্তবায়ন ঘটবে।
পণ্য পরিবহনের ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিমানকে লাভজনক করতে হলে কার্গো ব্যবস্থা অত্যন্ত জরুরি। অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটে কার্গো ছাড়া শুধু যাত্রী টেনে লাভজনক হওয়া সম্ভব না।”অনুষ্ঠানে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন সচিব খুরশীদ আলম চৌধুরী, বিমানের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান জামালউদ্দিন এবং বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকতা কাইল হাওয়ার্ড বক্তব্য রাখেন। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী কেক কাটার পর নতুন উড়োজাহাজ দুটি পরিদর্শন করেন।