টানা তিন দিন পর হলো আবওয়ার উন্নতি

বিশেষ প্রতিবেদক॥ মৌসুমী নি¤œচাপের প্রভাবে সমগ্র দক্ষিনাঞ্চল সহ উপকূলীয় এলাকার আবহাওয়া টানা তৃতীয় দিনের মত গতকাল দুপুর পর্যন্ত দূর্যোগময় থাকলেও বিকেল থেকে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি ঘটে। এমনকি বিকেল সোয়া ৪টার দিকে বরিশালের আকাশে কয়েক মিনিটের জন্য সূর্যেরও দেখা মেলে। এভাইে বিকেল গড়িয়ে সন্ধার পরেও আবাহওয়া তুলণনামূলকভাবে যথেষ্ঠ উন্নতি লাভ করে দক্ষিনাঞ্চলে। সন্ধার পরেও আসন্ন পূর্নিমার বড় মাপের চাঁদ কিছুটা আলো ছড়িয়েছে দক্ষিনাঞ্চল জুড়ে। তবে আগামীকালের মধ্যে আবহাওয়ার আরো পরিবর্তন সহ পরবর্তি ৫দিনের মধ্যে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা হ্রাসের কথা জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। গতকাল সন্ধ্যা ৬টার পূর্ববর্তী ২৪ঘন্টায় বরিশালে প্রায় ২৯মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। তবে গতকাল দুপুরের পরেই দক্ষিনাঞ্চলের আকাশ থেকে মেঘ কিছুটা দুর হয়ে আলো ছড়িয়েছে যথেষ্ঠ। রাতের আকাশও ছিল গত কয়েক দিনের তুলনায় যথেষ্ঠ মেঘমুক্ত। এর ফলে বরিশাল মহানগরী সহ সমগ্র দক্ষিনাঞ্চলের জনজীবন গতকাল দুপুরের পর থেকে কিছুটা গতি ফিরে পায়।
তবে আবহাওয়া বিভাগ থেকে গতরাতের এক বিশেষ বুলেটিনে ‘উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় অবস্থানরত মৌসুমী নি¤œচাপটি কার্যতঃ একই এলাকায় স্থির রয়েছে’ বলে জানানো হয়। মূলত এটির অবস্থান ভোলা ও পটুয়াখালীর কিছুটা মাঝামাঝি। মৌসুমী নি¤œচাপটি সোমবার সকাল থেকে গতকাল সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ১০কিলোমিটার পূর্বে স্থির ছিল। আবহাওয়া বিভাগের মতে নি¤œচাপটি আরও ঘণীভূত হতে পারে এবং এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়া অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ। পায়রা সহ দেশের সবকটি সমুদ্র বন্দরকে ৩নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি ভোলা, নোয়াখালী হয়ে পূর্ব উপকূলের সবকটি নদী বন্দরকে ২নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হলেও বরিশাল সহ দেশের অন্য সব নদী বন্দরে ১নম্বর সতর্কতা জারী রাখা হয়েছে।
তবে গতকাল সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত বরিশাল ও খুলনা বিভাগ সহ সমগ্র উপকূলীয় এলাকায় মাঝারী থেকে ভাড়ী এবং কোথাও কোথাও অতি ভারী বর্ষণের কথাও জানিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ। অপরদিকে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করার পাশাপাশি তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতেও পরামর্শ দিয়েছে আবহাওয়া বিভাগ।