ঝালকাঠি ঝুঁকিপূর্ণ বৈদ্যুতিক খুটি

ঝালকাঠি প্রতিবেদক॥ ঝালকাঠি শহরের গুরুদাম ব্রীজের পূর্ব ঢালে কুতুবনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের পুকুর পাড়ে রাস্তা সংলগ্ন বৈদ্যুতিক খুটিটি দীর্ঘ দিন যাবত রয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায়। গোড়ায় মাটি না থাকায় পুকুরের মধ্যে হেলে পড়েছে বৈদ্যুতিক খুটিটি। যে কোন সময় বৈদ্যুতিক তাড় ছিড়ে খুটিটি পানিতে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী। পৌর এলাকার সড়ক বাতি পরিদর্শক মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন, ওই পোস্টটি দীর্ঘদিন যাবত ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। মৌখিকভাবে ওজোপাডিকো নির্বাহী প্রকৌশলীকে জানানো হয়েছে। তিনি এব্যাপারে কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। হয়ত দূর্ঘটনা ঘটলে জরুরী ব্যবস্থা নিবেন। এছাড়াও আড়ৎদার পট্টিতে একটি লাইট পোস্টের (নং-ডব্লিউ-৪,১৮৩০) লাইন থেকে ১৪টি মিটার নামিয়ে ব্যবহার করছে স্থানীয় বাসিন্দারা। কিন্তু কয়েক বছর ধরে লাইট পোস্টের গোড়া মরিচা ধরে নাজুক হয়ে গেছে। বিদ্যুত বিভাগে অভিযোগ দিলে তারা এসে লাইট পোস্ট পরিবর্তন না করে ঝালাই করে দিয়েছে। তাও এখন অনেকটা নষ্ট হয়ে গেছে। লাইট পোস্ট পরিবর্তনের জন্য পৌর মেয়রের সুপারিশ নিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে আবেদনপত্র জমা দেয়া হলেও তিনি এখন পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেন না বলে জানান সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা সত্যবান সেন গুপ্ত গোপাল। এব্যাপারে ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানী (ওজোপাডিকো) এর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ বাছেতুজ্জামান জানান, গুরুদাম ব্রীজের পূর্ব ঢালে বৈদ্যুতিক খুটিটি হেলানোর বিষয়টি আমরা দেখেছি। গত বছর শুকনো মৌসুমে ২ হাজার টাকা ব্যয় করে খুটির গোড়ায় মাটি দিয়ে ঠিক করা হয়েছিল। বর্ষা মৌসুমে গোড়ায়ে পানি লেগে মাটি সরে গিয়ে সাবেক অবস্থায় ফিরে গেছে। পরিকল্পনা ছিল অন্য পার্শ্বে সরিয়ে নেয়া হবে। আবার শুনছি পুকুরটি বালু দিয়ে ভরাট করা হবে তাহলে তো আর সমস্যা থাকবে না। আড়ৎদ্দার পট্টির খুটিটিতে কোন সমস্যা নেই বলে দাবি করেন বাছেতুজ্জামান।