জেলা প্রশাসকের মহতী উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ মহান মুক্তিযুদ্ধের রণাঙ্গনে সক্রিয় অংশগ্রহনকারী দুঃস্থ ও অসহায় মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি পরিদর্শন করার ভিন্নধর্মী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসক শহীদুল আলম জানান, জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানরা দেশের জন্য যুদ্ধ করেও আজ মানবেতর জীবন যাপন করছে। তাদের পরিবারে প্রতি কারও নজরটুকুও নেই। তাই জেলা প্রশাসন থেকে এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকরা প্রত্যেককে ৫জন করে এবং ১০ উপজেলায় ইউএনওদেরকে প্রত্যেকে ৫ জন করে অসহায় মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি পরিদর্শন করেছেন। মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের খোজ খবর এবং ফুলের শুভেচ্ছা, মিষ্টি এবং উপহার সামগ্রী বিতরণ করেছেন। অন্যদিকে জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল আলম হতদরিদ্র রিকশাচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মুন্সীর পলিথিন দিয়ে ঘেরা জীর্ন-শীর্ন ঘরে হঠাৎ করে উপস্থিত হলেন। কোন রকম পূর্ব ঘোষনা ছাড়াই অসহায় মুক্তিযোদ্ধাদের ঘরে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তার উপস্থিতি ছিল তাকে চমকে দেয়ার মত ঘটনা। পরে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাঙ্গা ঘর পরিদর্শন করে তাকে নতুন লুঙ্গি ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের উপহার সামগ্রী দিয়েছেন। পাশাপাশি জরাজীর্ন ও ভাঙ্গা ছাউনির ঘরে বসত করায় জেলা প্রশাসনের অর্থায়নে উপযুক্ত ঘর নির্মানের আশ্বাস দিয়েছেন। এরপর আরও ৪ মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি পরিদর্শন করেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বীর উত্তম সার্জেন্ট আঃ সত্তার ও মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার মোঃ মোকলেছুর রহমান। মুক্তিযোদ্ধা এনায়েত হোসেন চৌধুরী জানান, স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে জেলা পর্যায়ে সকল মুক্তিযোদ্ধাদের গণ সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। এছাড়াও মুক্তিযুদ্ধে বিশেষ অবদানের জন্য ২৮ জন মুক্তিযোদ্ধাকে ২হাজার টাকা, সম্মাননা ক্রেষ্ট ও সার্টিফিকেট দেয়া হয়। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধাদের সৌজন্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচের আয়োজন করা হয়। এতে জেলা প্রশাসন একাদশ বনাম শহীদ মুক্তিযোদ্ধা এডিসি কাজী আজিজুল ইসলাম একাদশ ১-১ গোলে ড্র করে।