জেলখাল পরিচ্ছন্নতা অভিযান আজ

সিদ্দিকুর রহমান ॥ নগরীর ঐতিহ্যবাহী জেলখাল অপদখলমুক্ত ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান আজ। “জনগনের জেলখাল: আমাদের পরিচ্ছন্নতা অভিযান” এই স্লোগানে কর্মসূচিকে ঘিরে ইতিমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ। সকাল ১০ টায় শুরু হওয়া এই অভিযানকে সফল করতে জনসাধারনের মধ্যেও যেন সাজসাজ রব। সবাই যে যার সাধ্যমত সকল প্রস্তুতি গ্রহন করেছে। ইতিমধ্যে জেলখাল উদ্ধার অভিযানের তথ্য সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুনে খালের দু’পাড় ছেয়ে গেছে। নগরীর সবার মুখে মুখে এখন জেল খাল পরিচ্ছন্নতা অভিযানের কথা। সবার একটাই লক্ষ্যে এই ঐতিহ্যবাহী খালটি অপদখলের হাত থেকে মুক্ত এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান করে এর পুরনো যৌবন ফিরিয়ে দেয়া। এদিকে এই কার্যক্রমের সফলতার লক্ষ্যে গতকাল বেশ কয়েকবার জেল খালের ৩০টি পয়েন্টের প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল, জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর বৃন্দ সহ পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশগ্রহনকৃত সকল কর্মীবৃন্দ।
এছাড়াও আজ শনিবার সকাল ১০টায় নগরীর নথুল্লাবাদ পয়েন্টে “জনগনের জেলখাল: আমাদের পরিচ্ছন্নতা অভিযান” কর্মসূচির ইধৎরংধষ ভন ঞা তে সরাসরি সম্প্রচার কার্যক্রমের উদ্বোধন করার সম্মতি প্রদান করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি। এছাড়াও সকাল ১১ টার দিকে স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আব্দুল মালেক পরিচ্ছন্নতা অভিযান কার্যক্রম পরিদর্শন করবেন জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান।
অন্যদিকে গতকাল শুক্রবার খালের সৌন্দর্য ফিরিয়ে আনতে এবং পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নগরীর ঐতিহ্যবাহী জেল খালের নথুল্লাবাদ অংশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেছে সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানাগেছে, জেলখাল পরিচ্ছন্নতা অভিযান সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সফল করার লক্ষ্যে ইতিমধ্যে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা ও কাউন্সিলরবৃন্দ, জেলার সকল এনজিও, সাংস্কৃতিক সংগঠন, রোভার স্কাউট এবং বিএনসিসি, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, নদী বাঁচাও খাল বাঁচাও এনজিও এর প্রতিনিধি, ফেইসবুকের নিবন্ধিত সদস্য ও সকল অফিস প্রধান এবং গনমাধ্যম কর্মীসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সর্বশেষ মতবিনিময় সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে। যার ফলে এই জেলখাল পরিচ্ছন্নতা অভিযানকে ঘিরে সবার মধ্যেই এখন উৎসব মুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে।
এই কর্মসূচিকে ঘিরে কেউ কেউ নিজস্ব উদ্যোগ বা সংগঠনের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অংশগ্রহনমূলক স্ট্যাটাস, লিফলেট, ব্যানার, হ্যান্ডবিল, মাইকিং এবং সাধারন মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে প্রচার কার্যক্রম চালিয়েছে। এখন শুধু পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম সম্পন্ন করা বাকী।
এদিকে জেলখাল পরিচ্ছন্নতা অভিযানকে সামনে রেখে জেলা প্রশাসক ড. গাজী মো. সাইফুজ্জামান জানিয়েছেন, বরিশালের ঐতিহ্যবাহী জেল খালের পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার অভিযানকে সফল করার লক্ষ্যে জেলার ৬০ টি এনজিও প্রতিষ্ঠান সহ জেলার সাংস্কৃতিক সংগঠনের কর্মীবৃন্দ, রোভার স্কাউট এবং বিএনসিসির সদস্যবৃন্দ, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীবৃন্দ, নদী বাঁচাও খাল বাঁচাও আন্দোলন এর কর্মীবৃন্দ, ফেইসবুকের নিবন্ধিত সদস্য ও সকল অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং গনমাধ্যম কর্মীবৃন্দ স্বতস্ফুর্ত পরিচ্ছন্নতা কাজে অংশগ্রহন করবে। এছাড়াও জেল খালে স্বচ্ছ পানি সরবরাহ এবং খালের পুরনো যৌবন ফিরিয়ে দিতে সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালিত হবে বলে জানান তিনি। জেলা প্রশাসক বলেন, নগরীর নথুল্লাবাদ থেকে কীর্তনখোলা নদী পর্যন্ত জেল খালের দৈর্ঘ্য ৩.২ কিলোমিটার। ইতিমধ্যে প্রতি ১০০ মিটার করে একেকটি ব্লক চিহ্নিত করে ৩০টি খ- সুচিহ্নিত করে দৃশ্যমান নম্বর প্লেট প্রদান করার কার্যক্রম সমাপ্ত হয়েছে। এছাড়াও প্রতিটি খন্ডে একেকটি দলকে নিযুক্ত করা হবে। সবকটি দল মিলিয়ে প্রায় ২০ হাজার সচেতন মানুষ অংশগ্রহণ করবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি। তিনি আরো বলেন, পরিচ্ছন্নতা অভিযানের প্রত্যেক দশটি দলের একেকটি গুচ্ছের দায়িত্বে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক পর্যায়ের একেক জন কর্মকর্তা সমন্বয়ের দায়িত্বে থাকবেন। তাছাড়াও তার সাথে জেলা প্রশাসনের একেক জন নির্বাহী হাকিম একেক জন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সহযোগী হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়াও জেল খাল পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে নানারকম সহায়তা প্রদানের জন্য তিনটি কন্ট্রোলরুম খোলা হবে। এছাড়াও কন্ট্রোলরুমগুলোর সর্বদা মনিটরিং এর দায়িত্বে থাকবেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) কাজী হোসনে আরা এবং তার সাথে সহযোগিতা করবেন জেলা প্রশাসনের একজন নির্বাহী হাকিম। এসময় তিনি আরো জানান জেলখাল পরিচ্ছন্নতা অভিযানে অংশগ্রহনকৃত প্রতিটি দলের পরিস্কার করা ময়লার পরিমাণ বিবেচনায় ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান নির্ধারিত হবে এবং খাল থেকে প্রাপ্ত ময়লা বিসিসি’র আটটি ট্রাকে অপসারণ করে খাল থেকে দূরবর্তী বিসিসি’র ময়লা ফেলার নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা হবে। এদিকে জেলা প্রশাসনের নব্য উদ্ভাবন ইধৎরংধষ ভন ঃা ফেসবুক পেজে জেলখাল পরিচ্ছন্নতা অভিযান এর পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম সরাসরি প্রচার করা হবে। আর এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন বলে সম্মতি জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি। এছাড়াও সকাল ১১ টার দিকে বরিশালের কৃতি সন্তান স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আব্দুল মালেক পরিচ্ছন্নতা অভিযান কার্যক্রম পরিদর্শন করবেন বলে জানায় তিনি। এই কর্মসূচিতে সফল করার লক্ষ্যে আবারো সকলকে অংশগ্রহন করার আহবান জানিয়েছে তিনি।