ছাত্রী উত্যক্ত নিয়ে পলিটেকনিকে ছাত্রলীগে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ ॥ আটক-৩

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ ছাত্রী উত্যক্তের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বরিশাল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে হামলা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এতে এক পক্ষের ছাত্রলীগের দুই কর্মী আহত হয়েছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে ক্যাম্পাসের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। এছাড়া ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় চার ছাত্রকে আটক করেছে পুলিশ। তবে এর মধ্যে দু’জনকে ক্যাম্পাসের মধ্যেই ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন এর সমর্থক কম্পিউটার চুরান্ত বর্ষের ছাত্র রেজাউল কবির রেজা ওরফে ছোট রেজা এবং পাওয়ার চতুর্থ বর্ষের ছাত্র জসিম উদ্দিন মধ্যে আধিপত্ত বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো। সূত্র জানায়, সিভিল বিভাগের মমিন, ইমরান ও মিঠু নামে দুই ছাত্র জসিম গ্রুপের সদস্য। তারা ফেল করে আদুভাই হয়ে থাকায় ক্যাম্পাস থেকে তাদের আউট করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। কিন্তু এর পরেও ক্যাম্পাসে থেকে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি এবং নতুন ভর্তি হওয়া ছাত্রীদের ইভটিজিং করে আসছে। সূত্রগুলো আরো জানায়, জসিম গ্রুপের বহিঃস্কৃত ছাত্ররা উর্মি নামের এক ছাত্রীকে ইভটিজিং করে। এর প্রতিবাদ করে তার প্রেমিক আসিফ। এজন্য আসিফকে মারধর করে মমিন, ইমরান ও মিঠুরা। বিষয়টি রেজা গ্রুপের ছড়িয়ে পড়লে দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় ক্যাম্পাসে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ, ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া এবং ইটপাটকেল নিক্ষেপ এর ঘটনা ঘটে।
খবর পেয়ে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের কয়েকটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পরে হোস্টেলের মধ্যে অভিযান চালিয়ে ইলেক্ট্রো মেডিক্যাল ৩য় বর্ষের ছাত্র অভি, আমিনুল ও ইলেক্ট্রনিক্স বিভাগের কবির সহ ৪ জনকে আটক করে। এর মধ্যে অভি এবং আমিনুলকে থানায় প্রেরন করা হলেও শিক্ষকদের অনুরোধে কবির সহ দু’জনকে ছেড়ে দেয়িছে পুলিশ। তবে রাতে বাকি দু’জনকে ছেড়ে দেয়ার প্রস্তুতি চলছিল বলে থানার একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।