ছাত্রীনিবাস ‘বনমালী গাঙ্গুলী’তে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টা মামলা দায়ের

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ নগরীর বিএম কলেজ ছাত্রীনিবাস ‘বনমালী গাঙ্গুলী’তে সংঘর্ষের ঘটনায় পাল্টা মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল বুধবার ছাত্রীনিবাসের রুম নং-১০০০ এর ছাত্রী ফারজানা আক্তার বাদী হয়ে ৫ জনকে অভিযুক্ত করে চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করেন। আদালতের বিচারক মো. আলী হোসাইন মামলাটি ছাত্রীনিবাসের তত্ত্বাবধায়ককে তদন্ত পরবর্তী প্রতিবেদন জমা দেয়ার নির্দেশ দেন। অভিযুক্তরা হলেন পটুয়াখালীর কেওড়াবুনিয়া গ্রামের বাসিন্দা মতিউর রহমানের মেয়ে ছাত্রীনিবাসের ২০৩ নং রুমের ছাত্রী মনিরা সুলতানা, দুমকী উপজেলার বাসিন্দা বশির উদ্দিন খানের মেয়ে ৩০২নং কক্ষের ছাত্রী কান্তা ইসলাম, ঝালকাঠীর দক্ষিণ চেচিড়া গ্রামের বাসিন্দা সরোয়ার হোসেনের মেয়ে ১নং কক্ষের ছাত্রী নাঈমা আক্তার, পিরোজপুরের গাওখালী গ্রামের বাসিন্দা বাদল সরকারের মেয়ে ২০৯নং কক্ষের ছাত্রী শারমিন আক্তার, স্বরূপকাঠী উপজেলার বাসিন্দা সাজ্জাদ হোসেনের মেয়ে একই কক্ষের ছাত্রী মারিয়া হোসেন। আদালতসূত্র জানায়, মনিরা ঘটনার কিছুদিন পূর্বে মামলার সাক্ষী হেনা আক্তারের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা ধার নেয়। কয়েকবার পাওনা টাকা ফেরত চাইলে এবং তাদের অনৈতিক কাজে জড়িত করতে না পেরে ক্ষিপ্ত হয়। এর জের ধরে ১৪ জুলাই ফারজানা ও হেনা সহ সাক্ষীরা পেয়ারা পাড়তে গেলে অভিযুক্তরা তাদের উপর হামলা চালায়। এসময় মারধর করে এবং স্বর্ণের চেইন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এঘটনায় গতকাল মামলা করলে বিচারক ঐ আদেশ দেন। উল্লেখ্য এর পূর্বে হেনা সহ ৪ জনকে অভিযুক্ত করে একই আদালতে মামলা করা হয়েছিল।