ছাত্রলীগের কমিটি গঠনে জেলার কাউন্সিলরদের তালিকা প্রেরণ

রুবেল খান॥ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলকে ঘিরে বরিশাল মহানগসহ জেলায় জেলায় চলছে প্রস্তুতি। ২৬ জুলাই কাউন্সিলের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে বরিশাল থেকে প্রেরন করা হয়েছে ১৭৫ জন কাউন্সিলরের তালিকা। যার মধ্যে বরিশাল জেলা এবং মহানগরের তালিকায় রয়েছেন ৫০ জন কাউন্সিলরের নাম। গতকাল শুক্রবার এই তালিকা কেন্দ্রের উদ্দেশ্যে প্রেরন করা হয়েছে।
এদিকে জেলা পযায়ের পূর্ণাঙ্গ কমিটির মধ্যে থেকে কাউন্সিলর নির্ধারন করা হলেও ধার করা নেতাদের নিয়ে করা হয়েছে বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগের কাউন্সিলরের তালিকা। নগর ছাত্রলীগের ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠনের পর তিন বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনে ব্যর্থ হওয়ায় নগর ছাত্রলীগের কাউন্সিলর বাছাইতে ধার-উদ্ধার পদ্ধতি বেছে নিতে হয়েছে। তার মধ্যে আবার কাউন্সিলর বাছাইতে নগর ছাত্রলীগের জ্যেষ্ঠ নেতারা বাদ পড়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন তারা।
সূত্রে জানাগেছে, আগামী ২৬ ও ২৭ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কাউন্সিল। এ কাউন্সিলে ভোটা-ভোটির মাধ্যমে নির্বাচিত করা হবে নতুন নেতৃত্বের। আর তাই কেন্দ্রেীয় কাউন্সিল নিয়ে অনেকটা উদ্বিগ্ন বরিশাল জেলা ও মহানগর সহ গোটা অঞ্চলের ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা। কেননা এ কমিটির নেতৃত্ব পরিবর্তনের সাথে সাথে পাল্টে যেতে পারে স্থানীয় পর্যায়ে ছাত্রলীগের নেতৃত্বেও।
এদিকে কাউন্সিলের বাকি মাত্র ১৬ দিন। আর তাই জেলা এবং মহানগর পর্যায় থেকে কাউন্সিলরদের তালিকা গ্রহনের সময় শেষ হচ্ছে আজ ১১ জুলাই। এজন্য গতকাল শুক্রবার বরিশাল জেলা এবং মহানগর থেকে কাউন্সিলরদের তালিকা নিয়ে কেন্দ্রের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছেন স্থানীয় কমিটির প্রতিনিধিরা।
বরিশাল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হেমায়েত উদ্দিন আহম্মেদ সুমন ওরফে সুমন সেরনিয়াত পরিবর্তন প্রতিবেদককে জানান, প্রতিটি জেলা এবং মহানগর থেকে ২৫ জন করে কাউন্সিলরের তালিকা চেয়েছে কেন্দ্রীয় কমিটি। সে অনুযায়ী জেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির মধ্যে থেকে ২৫ জন কাউন্সিলর বাছাই করে পরবর্তী তালিকা গতকাল শুক্রবার একজন প্রতিনিধির মাধ্যমে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এ তালিকায় তরুন নেতাদের পাশাপাশি জ্যেষ্ঠ নেতাদেরও রাখা হয়েছে। এখন কেন্দ্র থেকে ডাক আসলে জেলার কাউন্সিলররা ঢাকায় যাবেন বলেও জানিয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের এই নেতা।
অপরদিকে খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, মহানগর ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি না থাকায় কাউন্সিলর বাছাইতে ধার-উদ্ধার পদ্ধতি গ্রহন করতে হয়েছে নগর ছাত্রলীগের ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটিকে। তারা নগরের জুনিয়র কর্মীদের দিয়ে ২৫ জন কাউন্সিলরের তালিকা করেছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র। তবে নগরের জ্যেষ্ট এবং ত্যাগি নেতারা কাউন্সিলরের তালিকা থেকে বঞ্চিত হয়েছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।
তবে মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, মহানগর ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি নেই। তাই পূর্বে কেন্দ্রের কাছে অনুমোদনের জন্য জমা দেয়া মহানগর ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির তালিকা থেকেই কাউন্সিলর বাছাই করা হয়েছে। ঐ তালিকায় থাকা সহ-সভাপতি এবং যুগ্ম ও সহ-সম্পাদকদের মধ্যে থেকে কাউন্সিলর নির্ধারণ করার জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন। এমনকি এই তালিকা গতকাল ঢাকায় প্রেরন করেছেন তারা।
শুধুমাত্র বরিশাল জেলা এবং মহানগর কমিটিই নয়, গতকাল শুক্রবার ব্যক্তি মাধ্যমে বরিশালের বাকি ৫ জেলার কাউন্সিলরদের তালিকাও কেন্দ্রে প্রেরন করা হয়েছে বলে জানাগেছে।