চাকুরী বাঁচাতে বিতর্কিত এসআই ওয়ারেছ এখন ঢাকায়

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ মামলা এবং আদালতে নির্যাতনের বিষয়ে স্ত্রীর জবানবন্দীর পরেও গ্রেফতার হয়নি কাউনিয়া থানার বিতর্কিত উপ-পরিদর্শক (এসআই) ওয়ারেছ। বরং কিশোরী স্ত্রী নির্যাতন এবং বিভাগীয় শাস্তি ঠেকাতে শুরু করেছেন দৌড়ঝাঁপ। পুলিশ বিভাগ থেকে সাময়িক বহিষ্কার হয়ে পালিয়ে ঢাকা হেড কোয়াটার্সে ম্যানেজ প্রক্রিয়া শুরু করেছেন বলে ওয়ারেছ এর বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে এ বিষয়ে তার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল নম্বরটি বন্ধ পাওয়া গেছে।
সূত্রমতে, নগরীর কাউনিয়া থানার বিতর্কিত উপ-পরিদর্শক (এসআই) ওয়ারেছ। তিনি প্রথম স্ত্রীর অনুমতি না নিয়ে এক কিশোরীকে জোর পূর্বক ভয় ভীতি দেখিয়ে বিয়ে করেন। এর পর বদ্ধ ঘরে অবরুদ্ধ অবস্থায় থেকে দিনের পর দিন ওয়ারেছের নির্মম নির্যাতনের শিকার হতে হয় কিশোরী গৃহবধু হাবিবা আক্তার মারুফাকে। ফরে তার নির্যাতনের হাত থেকে অবরুদ্ধ গৃহবধূকে উদ্ধার করে পুলিশ। বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালচনার ঝড় শুরু হলে স্ত্রী নির্যাতনকারী এসআই ওয়ারেছকে পুলিশ বিভাগ থেকে সাময়িক ভাবে বহিষ্কার করা হয়।
এদিকে স্ত্রীকে নির্যাতনের ঘটনায় গত ১০ মার্চ মেট্রোপলিটন কাউনিয়া থানায় এসআই ওয়ারেছকে আসামী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে মামলা দায়ের করেন মারুফার মা মাহমুদা বেগম। মায়ের দায়েরকৃত মামলার প্রেক্ষিতে গৃহবধূ মারুফা ১১ মার্চ আদালতে হাজির হয়ে স্বামীর নির্যাতনের কথা স্বীকার করে আদালতের কাছে জবানবন্দী দেয়।
অপরদিকে দিকে একজন আইনের রক্ষক হয়ে কিশোরী স্ত্রীকে ঘরের মধ্যে আটকে নির্যাতনের ঘটনায় সহকর্মীদের কাছে ধিক্কার পাত্র হয় ওয়ারেছ। এমনকি জেলা প্রশাসনের মাসিক আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় ওয়ারেছের কর্মকান্ডে নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা। সেই সাথে ওয়ারেছের কর্মকান্ডে গোটা পুলিশ বাহিনীকে কলুষিত করেছে বলেও তারা মন্তব্য করেন। এজন্য ওয়ারেছকে দ্রুত গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার জন্য পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি নির্দেশ করেন জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল আলম।
তবে এত কিছুর পরেও গ্রেফতার হচ্ছে না অলৌকিক ক্ষমতার অধিকারী স্ত্রী নির্যাতনকারী বিতর্কিত এসআই ওয়ারেছ। ফলে সাধারণ জনমনে অনেকটা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে। আসলে ওয়ারেছ গ্রেফতার হচ্ছে না, নাকি পুলিশ স্বজনপ্রীতি করে তাকে গ্রেফতার করছেনা এমন প্রশ্নই তাদের।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওয়ারেছ পুলিশ বিভাগ থেকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত হওয়ার পর পরই গা ঢাকা দেয় ওয়ারেছ। তিনি নিজের চাকুরী টিকিয়ে রাখার পাশাপাশি বরিশাল থেকে পালিয়ে ঢাকায় চলে যান। মট্রোপলিটন পুলিশের একজন সিনিয়র কর্মকর্তার পরামর্শ অনুযায়ী ওয়ারেছ ঢাকা হেড কোয়ার্টারে গিয়ে ম্যানেজ প্রক্রিয়া শুরু করেছে বলে পুলিশের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে।
এ বিষয়ে কাউনিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী মাহবুবর রহমান’র সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, ওয়ারেছকে গ্রেফতারে তাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তবে খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি এসআই ওয়ারেছ ঢাকায় অবস্থান করছে। সেখানেও তাকে ধরতে পুলিশের গোয়েন্দা ততপরতা বৃদ্ধি করা হয়েছে বলে জানান তিনি।